Bengali Jokes – ১০০০+ হাসির জোকস – হেসে পেট ব্যাথা হয়ে যাবে

Bengali Jokes seemed to laugh a little bit. So we brought you some Bengali jokes. Today, we have gone a lot of distance from reading the storybooks. Because we don’t have sufficient time for going to the library and reading the storybooks At this age of the Internet. But, if we can read the story on this internet, then it is very interesting. So we have brought a few collections of Bengali Jokes for you. Hope you will enjoy the stories in this busy lifestyle. In this post you will find the latest Bengali Jokes, You can read here  Bengali Jokes, download Bengali Jokes PDF.




 

Bengali Jokes

বাংলা সাহিত্যে প্রকৃত অর্থে JOKES এর কোন বই কোন দিন ছিল না। এখনও নেই। আমরা এখানে পাঁচ শতাধিক জোকসের এই সংকলনে দেশী ও বিদেশী রঙ্গ, ব্যঙ্গ, কৌতুক কলার এক অসাধারণ সমাবেশ ঘটানাের চেষ্টা করেছি। প্রায় হাজার খানেক ব্যঙ্গ কৌতুক ও চটকি হাসির এই সভার গ্রহে, বিদেশী বহ, গ্রন্থ থেকে অনেক ভেবে চিন্তে বেশ কিছু জোকস আহরণ করা হয়েছে। Bengali Jokes 

আমাদের বাঙ্গালী জীবনে হাসি যেন এক দুর্লভ বস্তু। এই হাসির আকালের দিনে লঘু, চপল চুটকি আর রঙ্গ-ব্যঙ্গ ভরা এই গ্রহ আশা করি আমাদের সমস্যা পীড়িত, বিষয় ভাবনা জর্জর জীবনে সাময়িক হাকা হাসির পলকা বাতাস বইয়ে দেবে। বাংলা সাহিত্যে একদা নক্সা, কৌতুক, ফাস ইত্যাদি সাহিত্যের প্রধান অঙ্গ ছিল। ভবানীচরণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নববাব; বিলাস, নববিবি বিলাস থেকে আরম্ভ করে কালীপ্রসন্নের হতােম পেঁচার নক্সা, বঙ্কিমের কমলাকান্তের জবানবন্দী, রবীন্দ্রনাথের ব্যঙ্গ কৌতুক ও পরশুরামের কঞ্জলী একদা সাহিত্যের দরবারে সাদরে গৃহীত হয়েছে। কিন্তু পরবর্তী কালে বাংলা সাহিত্যে হাসির গল্প তথা বঙ্গব্যঙ্গ সাহিত্যের দরবারে প্রায় ডমরের ফুল হয়ে উঠেছে। কিন্তু ওদেশে সসরিডন, পােপ, বাণডি’শ, মার্ক টোয়েন উহাউস, লিকক, জেরম কে জেরম ছাড়াও অনেক লেখকের লেখাতেই উইট আর আমাদের সমস্যা পীড়িত, বিষয় ভাবনা জর্জর জীবনে সাময়িক হাকা হাসির পলকা বাতাস বইয়ে দেবে। বাংলা সাহিত্যে একদা নক্সা, কৌতুক, ফাস ইত্যাদি সাহিত্যের প্রধান অঙ্গ ছিল। ভবানীচরণ বন্দ্যোপাধ্যয়ের নববাব; বিলাস, নববিবি বিলাস থেকে আরম্ভ করে কালীপ্রসন্নের হতোম পোঁচার নক্সা, বঙ্কিমের কমলাকান্তের জবানবন্দী, রবীন্দ্রনাথের ব্যঙ্গ কৌতুক ও পরশুরামের কঞ্জলী একদা সাহিত্যের দরবারে সাদরে গহীত হয়েছে। কিন্তু পরবর্তী কালে বাংলা সাহিত্যে হাসির গল্প তথা রঙ্গব্যঙ্গ সাহিত্যের দরবারে প্রায় ডুমুরের ফুল হয়ে উঠেছে। কিন্তু ওদেশে সেরিডন, পােপ, বাণডি’শ, মার্ক টোয়েন উডহাউস, লিকক, জেরম কে জেরম ছাড়াও অনেক লেখকের লেখাতেই উইট আৰু “হিউমারের ছড়াছড়ি। কিন্তু আমাদের আজকের সাহিত্যে ইমিত্র, সঞ্জীৰ ও নবনীতাকে বাদ দিলে হাসি যেন অবহেলিত, অন্তহিত প্রায়। আর জোকস বা নরসিকতা! বৈ—নৈব চ। কিন্তু আমরা ভুলে গেছি গােপাল ভাঁড়, ৰীৰল, কুন্দরাম, পরশম, শিৱম এদেশেই জন্মেছিলেন।  Bengali Jokes

কিন্তু বিদেশে অর্থাৎ ইংলণ্ড, আমেরিকা, ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানী ইত্যাদি দেশে আজও সাহিত্যের অঙ্গন ছাড়াও নিছক জোকস ও রঙ্গ কৌতুক জনজীবনে, বিশেষ করে নিয়মিত পার্টি ও সামাজিক মেলামেশার সমাবেশে এক অপরিহার্য অঙ্গ হিসাবে গণ্য হয়। তাই বিদেশে পাটি জোকস, নাইট ক্লাব জোকস, ফ্যামিলি জোকস, অ্যাডাল্ট জোকস, জোকস ফর কিডস ইত্যাদির ছড়াছড়ি।

কিন্তু আমরা দৈনন্দিন জীবনেও যেমন রঙ্গ রসিকতাকে পরিহার করে চলি। তেমনি সামাজিক সমাবেশ, বিয়ে, পৈতে, অন্নপ্রাশনের সমাবেশের উজ্জ্বল আলোয় কখনও জোকস বা রঙ্গ কৌতুককে প্রশ্রয় দান করি না। কিন্তু একথা অস্বীকার করতে পারি না যে Laughter is the best Medicine. হাসি সুস্বাস্থ্যের প্রধান উপকরণ। রঙ্গ কৌতুক জীবনের জীয়নকাঠি, সঞ্জীবনী সধা, বাঁচবার অনপান। | আজকের হাই প্রেসার আর হার্ট অ্যাটাকের যুগে জীবন যন্ত্রণার হাত থেকে মুক্তির এক বড় হাতিয়ার রঙ্গ কৌতুক, চুটকি হাসি। জীবনের ছােট-খাট ব্যর্থতা আর বঞ্চনার হাত থেকে মুক্তি ঘটিয়ে রঙ্গ কৌতুক, চুটকি হাসি আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের গতানুগতিকতার মধ্যে এক অভিনব, অনাস্বাদিত পর্ব আস্বাদন আনতে পারে। Bengali Jokes

তাই আমরা আপনাদের জন্য ১০০০+ Bengali Jokes  নিয়ে এসেছি আশা করি আমাদের প্রত্যাহিক জীবনের বিড়ম্বিত বাস্তবতার মাঝে এক সাময়িক বিরতি টেনে জীবনকে মধুময়, মাধুর্যমণ্ডিত করতে হায্য করবে।

Please share Your Friends these Bengali Jokes.

 




 

Bengali Jokes

 

 

ঘরে কেও নাই আমি একা

এক বার আমার গার্লফ্রেন্ড আমকে ফোন দিয়ে ওর বাসায় যেতে বলল আমি গেলাম,গিয়ে বেল বাজালাম,ওর ছোট বোন দরজা খুলল এবং বলল.
ঘরে কেও নাই, আমি একা আমি একটা হাসি দিলাম,এবং আমি ঘর থেকে বের হয়ে আমার বাইক এর দিকে গেলাম……
ঠিক সেই সময় তার পুরো ফেমিলি বার হয়ে আসল,এবং আমার ভদ্রতার অনেক প্রশংসা করল…. কিন্তু আমি তো বাইক টা লক করে দিতে যাচ্ছিলাম ।

 

চুলকানি হয়েছে

আবুল গেল তার জ্যোতিষ বাবারকাছে ডান হাত বাড়িয়ে বলল, বাবা! আমার ডান হাত চুলকায়। কী আছে সামনে বলেন?
জ্যোতিষ বাবা বলল, তোর অর্থ প্রাপ্তি সুনিশ্চিত! আবুল বলল, বাবা, বাম হাতও চুলকায়!
বাবা বলে, কী বলিস! তোর আরও অর্থ আসবে। আবুল আনন্দিত গলায় বলল,বাবা বাবা,আমারডান হাঁটু চুলকায়।
জ্যোতিষ বলল, তোর বিদেশ যাত্রা হবে। খুশিতে গদগদ আবুল মহা উৎসাহের সাথে বলল, আমার বাম হাঁটুও চুলকায়!!
বিরক্ত হয়ে জ্যোতিষী বলল,ওরে হারামজাদা, তোরতো চুলকানি হয়েছে!!

Bengali Jokes – Bengali Jokes PDF

bengali jokes
bengali jokes

বিবাহিত ভাইদের জন্য

বিবাহিত ভাইদের প্রতি…
যদি মাঝ রাতে আপনার মন চায় আর আপনার বউয়ের মুড না থাকে তবে বউ কে বিরক্ত না করে নিজেই উঠে আপনার হাত দিয়ে চা বানিয়ে নিন।
কি ভেবেছিলেন আপনারা?

 

Bengali Love Quotes – ১০০০+ মহান ব্যক্তিদের ভালোবাসার উক্তি

 

পাছায় একটা চুমো দিও

জলিল রাস্তা দিয়ে হেটে যাচ্ছে। এক পিচ্চি তাকে প্রশ্ন করল,” কয়টা বাজে?” পৌনে তিনটা।
তিনটা বাজলে আমার পাছায় একটা চুমো দিও। এই কথা বলেইপিচ্চি দিয়েছে দৌড়।
জলিল ভাইয়ে রেগে গিয়ে তার পিছে পিছে দৌড়াচ্ছে। পথে শাকিব খানের সাথে ধাক্কা খেল।
শাকিব খানঃ কিরে দোস্ত, দৌড়াস কেন ??
আরে হালার পিচ্চি কয় তিনটা বাজলে ওর পাছায় চুমু খেতে ।- এই জন্য দৌড়াচ্ছিস!!
শাকিব খানঃ এত তাড়াহুড়া কিসের শুনি?? তিনটা বাজতে এখনো দশ মিনিট বাকি।

 




 

Please share Your Friends these Bengali Jokes.

 

প্রতিবেশী শীতের রাতে ডাকলে কখনও যাবেন না, না হলে হতেপারে এই হাল

পাঁচু রাত ১২ টায় নাচুকে ফোন করেছে — পাঁচু— নাচু, একটু আমার বাড়িতে আয় না, জরুরী কাজ আছে।

নাচু— আমি এখন আসতে পারব না, ঘুম পাচ্ছে।

পাঁচু— প্লিজ আয় না, জরুরী কাজ আছে। নাচু— বললাম তো আসতে পারব না, ঘুমাব। গুড নাইট। (ফোন অফ) কিছুক্ষণ পর নাচু ভাবল খুব জরুরী কাজ হবে হয়তো, এইসব ভাবতে ভাবতে নাচু পাঁচুর বাড়ি গেল।

নাচু— কিরে, কি জরুরী কাজ তোর এত রাতে …?

পাঁচু— বোস্, চা-কফি কিছু খাবি? (পাঁচু মনে মনে বলল, যদি তুই কিছু খাস্ তোকেই বানাতে হবে, এই শীতে আমি আর উঠছি না।)

নাচু— নাঃ, এত রাতে অত ফর্ম্যালিটি করতে হবে না। কি কাজ করতে হবে তাড়াতাড়ি বল্ … আমাকে বাড়ি ফিরতে হবে।

পাঁচু— টিভি আর লাইটের সুইচটা একটু অফ্ করে দিয়ে যা, খুব শীত লাগছে, লেপ ছেড়ে উঠতে পারছি না, তাই তোকে ফোন করে ডাকলাম।।। নাচু টিভি আর লাইটের সুইচটা অফ্ করে ফ্যানের সুইচটা অন্ করে দিয়ে চলে গেল। দেখ্ কেমন লাগে।

Bengali Jokes

‘ধন’ নিয়ে এমন ঘোর বিভ্রাট! যা শুনে হাসি চেপে রাখাই দায়

প্রথমে বলা হল ‘ধন’ কালো হওয়া চলবে না সাদা করতে হবে…. তারপর বলা হল ‘ধন’ প্লাস্টিকের করতে হবে…. তারও পরে বলা হল ‘ধন’-হীন (cashless) হতে হবে…. আর এখন বলছে ‘ধন’- ডিজিটাল করতে হবে….জানি না এরপর ধনের কী অবস্থা অপেক্ষা করছে..!! এখন মনে হচ্ছে নিজের ‘ধন’ নিজ হাতে ধরে বসে থাকতে হবে !!

 

একটা চুমো

বান্ধবীকে রাতের বেলা বাড়ি পৌঁছে দিতে এসেছে বাবু। দরজার পাশে দেয়ালে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে বললো সে, একটা চুমো খেতে দাও আমাকে।’ ‘কী? তুমি পাগল হলে? এখানে দাঁড়িয়ে না না না!’ ‘আরে কেউ দেখবে না। এসো, একটা চুমো।’ ‘না না, খুব ঝামেলা হবে কেউ দেখে ফেললে।’ ‘আরে জলদি করে খাবো, কে দেখবে?’ ‘না না, কক্ষণো এভাবে আমি চুমো খেতে পারবো না।’ ‘আরে এসো তো, আমি জানি তুমিও চাইছো — খামোকা এমন করে না লক্ষ্মী!’ এমন সময় দরজা খুলে গেলো, বান্ধবীর ছোট বোন ঘুম ঘুম চোখে দাঁড়িয়ে। চোখ ডলতে ডলতে সে বললো, ‘আপু, বাবা বলেছে, হয়তুমি চুমো খাও,নয়তো আমি চুমো খাই, নয়তো বাবা নিজেই নিচে নেমে এসে লোকটাকে চুমো খাবে —কিন্তু তোমার বন্ধু যাতে আল্লার ওয়াস্তে ইন্টারকম থেকে হাতটা সরায়।’

 

আধুনিক ছেলে

এক পিচ্চি বাসে যাওয়ার সময় বাসের দরজার সামনে দাড়িয়ে ছিল সেটা দেখে কনডাক্টর বলছে… “কিরে তুই সব সময় দরজার সামনে দাঁড়াইয়া থাকিস!! তোর বাপে কি চৌকিদার আছিল??”
পিচ্চিঃ আরে আর তুই তো সব সময় টাকা চাইতে থাকিস তোর বাপে কি ফকির আছিল??

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

বিয়ে দিয়েই ছাড়ব

কল সেন্টার এক ভদ্রলোক ফোন করলেন

যান্ত্রিক মহিলা কন্ঠ : “নমস্কার।” “বিয়ে দিয়েই ছাড়ব” তে আপনাকে স্বাগত।
নিজের বিয়ের জন্য ১ টিপুন, মেয়ের বিয়ের জন্য ২ টিপুন, ছেলের বিয়ের জন্য ৩ টিপুন—বিবাহ বিশেষজ্ঞ এর সাথে কথা বলতে ৯ টিপুন।

ভদ্রলোক ৯ টিপলেন…

বিশেষজ্ঞ: আমি আপনাকে কিভাবে সাহায্য ক‍রতে পারি?

ভদ্রলোক —ইয়ে মানে আমি জানতে চাইছিলাম দ্বিতীয় বিয়ের জন‍্য কি টিপব?

বিশেষজ্ঞ: প্রথম বৌয়ের গলা টিপুন।

Bengali Jokes

bengali jokes
bengali jokes

মোমের ব্যবহার

মহিলা হোষ্টেলে হঠাৎ বিদ্যুৎ নষ্ট হয়ে গেলে, ওয়ার্ডেন বিদ্যুৎ অফিসে ফোন করলো, ”হ্যালো বিদ্যুৎ অফিস? আপনার লোকজন কেশিগ্গির পাঠিয়ে দিন, মেয়েরা সবাই মোমবাতি ব্যবহার করছে!”

 

কাপড় খুলতে হবে

যুবতী ছাতি মিস্ত্রির নিকট ভাঙ্গা ছাতি নিয়ে গেল-
মিস্ত্রী: “উপরের কাপড় খুলতে হবে, আর নীচে ডান্ডা লাগাতে হবে”
যুবতী: “যা ইচ্ছা করো, কিন্তু পানি যেন ভিতরে না পড়ে।”

 

কপাল আর লুংগি

কপাল আর লুংগির মধ্যে মিল কোথায়?
উত্তরঃ দুটোই যেকোনো সময় খুলে যেতে পারে !!!
এবার বলুন দেখি,
কপাল আর লুংগির মধ্যে পার্থক্য কি?

উত্তরঃ আরে ভাই, কপাল খুললেপৌষ মাস,লুংগি খুললে সর্বনাশ

Bengali Jokes

 

Love Story in Bengali – ১০টি সত্য ভালোবাসার গল্প

দুধ থেকে

একবার ক্লাস এ ম্যাডাম ব্লাউস এ গোলাপ লাগিয়ে ক্লাস এ আসলো। কথা প্রসংগে ছাত্রদের
জিজ্ঞাসা করলোঃ বলতো গোলাপ, এর পুষ্টি কোথা থেকে পায় ??
ছাত্রঃ দুধ থেকে।
ম্যাডামঃ না পানি থেকে!! এই সহজ প্রশ্নটাই পারলে না।
ছাত্রঃ আমি ক্যামনে জানমু এইটার ডাঁটা এত নিচে গেছে ।

 

চারটে বেজে গেছে, উঠে পড়ো

স্বামী আর স্ত্রীর মধ্যে প্রচন্ড ঝগড়া। মুখ দেখা, কথা বন্ধ।
রাতে শুতে যাওয়ার সময় স্বামীর মনে পড়ল পরের দিন ভোরবেলা ফ্লাইট । এদিকে স্বামী বেচারা সকালে উঠতে পারে না। সাত-পাঁচ ভেবে সে একটি কাগজে লিখল ” কাল সকাল চারটার সময় ডেকে দিও।” কাগজটা স্ত্রীর বালিশের কোণায় চাপা দিয়ে স্বামী নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়ল।

পরের দিন সকালে সাড়ে আটটার সময় স্বামীর ঘুম ভাংল। সময় দেখে তার তো চক্ষু চড়কগাছ। রেগেমেগে চিৎকার করে স্ত্রীকে ডাকতে গিয়ে তার নজরে পড়ল বালিশের পাশে একটা চিরকুট। খুলে দেখল লেখা আছে ” চারটে বেজে গেছে, উঠে পড়ো।”

Please share Your Friends these Bengali Jokes.

 




 

তিন পিঁপড়া এক হাতি

একবার গভীর বনে তিন পিঁপড়া বসে আড্ডা দিচ্ছিল । এই সময় তাদের সামনে দিয়ে একটা হাতি হেঁটেযা
প্রথম পিঁপড়াঃ চল, শালারে মেরে গুম করে ফেলি!
দ্বিতীয় পিঁপড়াঃ আরে থাক, মেরে ফেলার দরকার নেই ! এর চেয়ে চল মেরে হাত পা ভেঙ্গে দেই !
তৃতীয় পিঁপড়াঃ আরে থাক থাক ! মাফ কইরা দে ! আমরা তিনজন, আর বেচারা একলা !

 

সাধারণ ফ্রেন্ড আরবেস্ট ফ্রেন্ডের মধ্যে পার্থক্য

সাধারণ ফ্রেন্ড আরবেস্ট ফ্রেন্ডের মধ্যে পার্থক্য কি? আপনি কাদায় পা পিছলে পড়ে গেলে সাধারণ বন্ধু

আপনাকে নিয়ে খুব হাসবে। কিন্তু বেস্ট ফ্রেন্ড কি করবে জানেন? আপনার ছবি তুলে ফেসবুকে আপলোড করবে . . .

Bengali Jokes

হাত বাড়িয়ে টিপে বাবলু

হাবলু আর বাবলু, দুই ভাই একটা আমগাছে ঢিল ছুড়ছিল।
হাবলু: ভাইয়া,এতক্ষণ ঢিল ছুড়ছি, তবু এমটা পরছেনা। আমার মনে হয় আমটা এখনো কাঁচা।
বাবলু: হুম ! বৃথা কষ্ট করে কি লাভ? তুই এক কাজ কর তো, গাছ বেয়ে অপরে উঠে যা। হাবলু অনেক কষ্টে গাছের অপরে উঠল। হাত বাড়িয়ে আমটা টিপে বাবলু কে জানাল, “ভাইয়া, আমটা পাকা !

বাবলু: গুড ! জলদি নীচে নেমে আয়। দুই ভাই মিলে ঢিল ছুরে আমটা পারতে খুব বেশি দেরি হবে না !

 

আমি ক্ষুধার্থ

ছেলেঃ বাবা, আমি ক্ষুধার্থ!
বাবাঃ হ্যালো ক্ষুধার্থ! আমি তোমার বাবা।

ছেলেঃ বাবা আমি সিরিয়াস।
বাবাঃ নাহ্‌! এইমাত্র বলেছ তুমি ক্ষুধার্থ!

ছেলেঃ উফ্‌! তুমি একটা জোকা

 

আস্তে আস্তে করিস

মেয়ের বান্ধবী ঐ মেয়ের বাসর রাতের আগেরদিন যা বলতো এবং বলে
১৯৮০ সালঃ বেশি লজ্জা পাইস না, তোর ই তো স্বামী।
১৯৯০ সালঃ ও যা করতে চায় তাই করতে দিশ, কষ্ট লাগলেও তা স্বীকার করবি না।
২০০০ সালঃ আস্তে আস্তে করিস , বেশি উতলা হইস না, না হইলে ব্যথা লাগতে পারে।
২০১৩ সালঃ করার সময় জোরে জোরে চিৎকার দিশ যাতে ও বুঝতে পারে যে এটাই তোর প্রথম…

 

সেক্সি মেয়েতে ছেলে বেহুঁশ

ক্লাসে খুব সুন্দরি ও সেক্সি একটা মেয়ে প্রবেশ করল। মেয়েটিকে দেখে তো ক্লাসের সব ছেলে দিওয়ানাহয়ে গেল। কিন্তু মেয়েটি ক্লাসে ঢুকে এমন এক কথা বলল, যা শুনে ছেলেগুলো বেহুঁশ হয়ে গেল! কি বলেছিল মেয়েটি??? মেয়েটি বলেছিল – ভাইজান একটু চাপেন, ক্লাস রুম টা ঝাড়ু দিতে হবে!

 

Bengali Jokes

 

Bengali Sad Story – পড়ে দেখুন কান্না চলে আসবে বলে দিলাম

 

সুযোগ আসে কাজে লাগান

একটা ডাকাত ব্যাংকে ঢুকে ব্যাংক ডাকাতি করল…!!!
তারপর পাশের একটা মহিলাকে বলল: আপনি কি আমাকে ব্যাংক ডাকাতি করতে দেখেছেন?
মহিলা: হ্যা…
ডাকাতটা মহিলাকে গুলি করে মেরে ফেলল!!!!
তারপর পাশের একটা লোককে বলল: আপনি কি আমাকে ব্যাংক ডাকাতি করতে দেখেছেন?
লোকটি: না, কিন্তু আমার স্ত্রী দেখেছে !!
মোরাল: যখন সুযোগ আসে কাজে লাগান!!

 

সাবধান আর নিচে নামিস না

এক শিক্ষক ক্লাসে ছাত্রদের জিজ্ঞেস করেন – এমন জিনিসের নাম বল তাে যা ভিন্ন ভিন্ন

নামে পরিচিতি হয়।

ছাত্র – চুল

শিক্ষক – কিভাবে?

ছাত্র – মাথায় আমরা বলি চুল , চোখের উপরে থাকলে বলি ভ্রু, ঠোটের উপরে থাকলে বলি গােফ, গালে ও চিবুকে থাকলে বলি দাড়ি।

বুকে থাকলে বলি লােম এবং শিক্ষক – সাবধান আর নিচে নামিস না !!

 

আজকালকের ছেলেদের কোনাে বিশ্বাস নাই!

দুই মেয়ে কথা বলছে১ম মেয়ে: আজকালকের ছেলেদের কোনাে বিশ্বাস নাই। আমি তাে আজকে থেকে ওর

মুখও দেখতে চাই না… ২য় মেয়ে: কি হইছে? তুমি কি ওকে অন্য

কোনাে মেয়ের সাথে দেখে ফেলছ? ১ম মেয়ে: আরে না! ও আমারে আরেক ছেলের সাথে দেখে ফেলছে…I কালকে ও আমারে বলছিল যে, ও নাকি শহরের বাইরে যাবে। তাহলে সে আমাকে কিভাবে দেখল।

মিথুক, বদ, ধোঁকাবাজ…

Bengali Jokes




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

রাতে রােমান্টিক মেসেজ

প্রেমিকা তার প্রেমিককে রাতে রােমান্টিক

মেসেজ পাঠাচ্ছে…

মেয়েঃ ঘুমিয়ে আছাে তাে স্বপ্ন পাঠাও, জেগে আছাে তাে ভাবনা পাঠাও, যদি কাঁদছাে তাে চোখের জল পাঠাও। ছেলেঃ প্রিয়তমা পায়খানা করতেছি কি

পাঠাবাে?

 

বন্টু বউয়ের সাথে ঝগড়া

বন্টু :তুই তাের বউয়ের সাথে ঝগড়া করিস? পন্টু : হ্যাঁ, করি। তবে প্রতিবার ঝগড়ার শেষে ও এসে হাঁটু গেড়ে আমার সামনে বসে পড়ে।

বন্টু :বলিস কী! তারপর? পন্টু: তারপর মাথা ঝুঁকিয়ে বলে, খাটের তলা থেকে বেরিয়ে আসাে। আর মারব না।’

 

সবাই বাথরুমে গান গায়

প্রথম বন্ধু : জানিস, আমাদের বাসার সবাই

বাথরুমে গান গায়! দ্বিতীয় বন্ধু : বলিস কী, স-বা-ই? 

প্রথম বন্ধু :সবাই, চাকর-বাকর পর্যন্ত। দ্বিতীয় বন্ধু : তােরা তাহলে সবাই খুব গানের

ভক্ত! প্রথম বন্ধু : দূ-র-র, তা নয়, আসলে আমাদের

বাথরুমের ছিটকিনিটা নষ্ট তাে, তাই!

 

দোকান খােলা

তন্ময় : তাের ছােট ভাইটা এখন কী করছে ? রাফি: কিছুদিন আগে একটা কাপড়ের দোকান খুলেছিল, এখন জেলে আছে।

তন্ময় : কেন?

রাফি: কারণ ও দোকানটা খুলেছিল হাতুড়ি

দিয়ে…দরজা ভেঙে!

Bengali Jokes

একচেটিয়া ব্যবসা

বদু:কী করছিস আজকাল?

কদু:সৎ পথে ব্যবসা করার চেষ্টা করছি।

বদু:তাহলে তাে তাের একচেটিয়া ব্যবসা।

কদু: মানে? বদু:তুই ছাড়া তাে ওই লাইনে আর কেউ নাই!

 

এক মিনিটের জন্য মানুষ 

ভিক্ষুক : মাগাে! দুটো ভিক্ষা দিন, মা।

বাড়ির মালিক : বাড়িতে মানুষ নেই, যাও।

ভিক্ষুক : আপনি যদি এক মিনিটের জন্য

মানুষ হন, তাহলে খুব ভালাে হতাে!

 

কাল এনে দেবাে

পচাদা নিজের দোকানের নতুন কর্মচারি বান্টাকে বলল “আমি বাড়ি থেকে আসছি, 

কোন খদ্দের ফেরাবি না। যা চাইছে তা। দোকানে না থাকলে অন্য কোম্পানির কিছু একটা দিয়ে বলবি আজকের মত চালিয়ে

নিতে, কাল এনে দেবাে”।

খদ্দের : ভাই টয়লেট পেপার আছে ?

বান্টা : না দাদা, শিরিষ কাগজ আছে, আজকের মত চালিয়ে নিন, কাল এনে দেবাে।

 

তিন মাতালের গাড়ি চড়া

 ৩ জন মাতাল রাতে একটা গাড়িতে উঠল 

ড্রাইভার বুঝতে পারল যে তারা মাতাল!! ড্রাইভার গাড়ির ইঞ্জিন চালু করল এবং সাথে সাথে বন্ধ করে ফেলল আর তাদেরকে বলল যে তারা নাকি গন্তব্যস্থলে পৌঁছে গিয়েছে। ৩ মাতাল গাড়ি থেকে নামল। তারপর…

 ১ম মাতালঃ ধন্যবাদ…. ২য় মাতালঃ নিন, ১০ টাকা বকশিস দিলাম। তখন ৩য় মাতাল ড্রাইভারকে দিল একটা

থাপ্পর। ড্রাইভার মনে করল যে লােকটা বােধ হয় মাতাল না, হয়ত সবকিছু বুঝে ফেলেছে। তবুও ড্রাইভার তাকে জিজ্ঞেস করল: থাপ্পর

মারলেন কেন?? ৩য় মাতালঃ শালা, এত স্পীডে কি কেউ গাড়ি চালায়! আর একটু হলে তাে মেরেই ফেলেছিলি।

Bengali Jokes

 

Latest Bengali Jokes for Whatsapp

 

কিছুক্ষণের জন্য ছাড়তে হবে

ম্যাজিস্ট্রেট:২০ টাকা পকেট মারার জন্য তােমাকে একশ টাকা জরিমানা দেওয়া হল।

পকেটমার : আমার কাছে মাত্র ২০ টাকা আছে, স্যার। বাকি টাকা এক্ষুনি এনে দিতে পারি, কিন্তু কিছুক্ষণের জন্য ছাড়তে হবে।

 

বল্ট ও তার বন্ধু

তিন বন্ধু মিলে জঙ্গলে হাঁটতেছে। হঠাৎ

তাদের সামনে একটা পরী এল পরী :তােমরা একটা করে ইচ্ছার কথা বল , আমি তােমাদের সেই ইচ্ছা পূরণ করে দেব।

বন্ধু ১ : আমাকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর বানিয়ে দাও।

পরী: দিলাম।

বন্ধু ২: আমাকে দুনিয়ার সবচেয়ে হ্যান্ডসাম ছেলে বানিয়ে দাও।

পরী: দিলাম।

বন্টু:এই দুইজনকে আগের মত করে দাও!!

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

সিনেমার বিয়ে এবং বাস্তব বিয়ে

দুই বিবাহিত বন্ধু বিল্ট আর দুবলাের মধ্যে

কথা হচ্ছে – বিন্টু: আচ্ছা দুবলাে! বল তাে সিনেমার জীবন আর বাস্তব জীবনের মধ্যে পার্থক্য কী?

দুবলাে: এইটা বুঝলি না! সিনেমায় অনেক ঝক্কিঝামেলা পেরােনাের পর বিয়ে করতে হয়। আর বাস্তব জীবনে বিয়ের পর অনেক

ঝক্কিঝামেলা শুরু হয়!

 

অসুখটা আসলে মানসিক

ডাক্তার: চিন্তার কিছু নেই। আপনার চাচার অসুখটা আসলে মানসিক। উনি মনে করেন

উনি অসুস্থ, আসলে তা নয়। কিছুদিন পর রােগীর খবর নিতে ফোন করলেন ডাক্তার।

ডাক্তার: কী অবস্থা আপনার চাচার?

রােগীর আত্মীয়: খুবই খারাপ! উনি মনে করেন, উনি মারা গেছেন!

Bengali Jokes

 

Rupkothar Golpo – ১০টি সেরা ছোটোদের মজার মজার রূপকথার গল্প

 

বারােটা বাজবে

এক ছাত্র পরীক্ষার হলে বসে প্রশ্নপত্র নিয়ে বেশ অস্থির হয়ে বিড় বিড় করছে

শিক্ষক: কী ব্যাপার তুমি খাতায় না লিখে বসে বসে উসখুস করছ কেন?

ছাত্র: স্যার, প্রশ্ন যে রকম কঠিন এসেছে। লিখতে আমার বারােটা বাজবে।

শিক্ষক: তাতে কি এখন তাে এগারােটা বাজে!

 

যৌতুকবিরােধী আন্দোলনে

শফিক সাহেব: আমি আগামী মাস থেকে যৌতুকবিরােধী আন্দোলনে নামব।  কী বলেন?

রফিক সাহেব: কেন, এ মাসে নামবেন না কেন?

শফিক সাহেব: এ মাসে আমার ছেলের বিয়ে আর আগামী মাসে মেয়ের বিয়ে তাে, তাই!

 

ছেলের আচার-ব্যবহার কেমন?

পাত্রীর বাবা : ছেলের আচার-ব্যবহার কেমন?

ঘটক : নিশ্চয়ই ভালাে। এক খুনের মামলায় তার ১০ বছর জেল হয়েছিল। আচার-ব্যবহার দেখেই জেল কর্তৃপক্ষ সাজা দুই বছর মওকুফ করেছে।

পাত্রীর বাবা : ছেলে উদার মানছি। আমার মেয়েকে যে কখনােই ছেড়ে যাবে না, আপনি কী করে বুঝলেন,

ঘটক সাহেব? ঘটক : কারণ, ছেলে এ পর্যন্ত কোনাে গার্লফ্রেন্ডকেই ছাড়েনি। বরং গার্লফ্রেন্ডরাই তাকে ছেড়ে গেছে!

 

যুক্তিবিদ্যার ক্লাস চলছে

যুক্তিবিদ্যার ক্লাস চলছেশিক্ষক : আমি টেবিল ছুঁয়েছি, টেবিল মাটি ছুঁয়েছে, সুতরাং আমি মাটি ছুঁয়েছি। এভাবে একটি যুক্তি দেখাওতাে।

ছাত্র : আমি আপনাকে ভালােবাসি, আপনি আপনার মেয়েকে ভালবাসেন, সুতরাং আমি আপনার মেয়েকে ভালােবাসি!

Bengali Jokes

ভদ্রমহিলা ও সিনেমা হলের ম্যানেজারের মধ্যে ফোনালাপ

এক ভদ্রমহিলা ও সিনেমা হলের ম্যানেজারের মধ্যে ফোনালাপমহিলা:হ্যালাে। কোন ছবি চলছে?

ম্যানেজার : আই লাভ ইউ!

মহিলা: (রেগে গিয়ে) ইডিয়ট।

ম্যানেজার : এটি গত সপ্তাহে চলছিল।

মহিলা : (আরাে রাগান্বিত হয়ে) ননসেন্স।

ম্যানেজার : এটি আগামী সপ্তাহে চলবে!

 

গােপন রহস্য

জন্মবার্ষিকীতে একজন শতায়ু বৃদ্ধাকে জিজ্ঞেস করা হল তাঁর এই দীর্ঘ জীবনের গােপন রহস্য কী? বৃদ্ধা বললেন, এখনই ঠিক বলা যাচ্ছে না। একটা ভিটামিন পিল কোম্পানি, একটা আয়ুর্বেদ কোম্পানি আর একটা ফুট জুস ফ্যাক্টরির সাথে দরদাম। চলছে।

 

কী করে বলব

বাইরে থেকে দরজা নক করছে।

ভেতর থেকেঃ কে?

বাইরে থেকেঃ আমি।

ভেতর থেকেঃ আমি কে?

বাইরে থেকেঃ আরে, আপনি কে আমি কী করে বলব?

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

একটা কঠিন প্রশ্ন করব

চাকরির ভাইভায় এক তরুণকে প্রশ্ন করা হল

প্রশ্নকর্তা : আপনাকে আমি ১০টি সহজ প্রশ্ন করব অথবা কেবল একটা কঠিন প্রশ্ন করব। উত্তর দেওয়ার আগে ভালাে করে ভেবে | দেখুন, কোন অপশনটা বেছে নেবেন।

তরুণ : কঠিন প্রশ্নের উত্তরটাই দিতে চাই।

প্রশ্নকর্তা : ভালাে, শুভকামনা আপনার জন্য। এবার বলুন, কোনটা প্রথমে আসে- দিন না রাত?

তরুণ: দিন প্রথমে আসে, স্যার!

প্রশ্নকর্তা :কীভাবে?

তরুণ :দুঃখিত স্যার, আপনি কথা দিয়েছিলেন, দ্বিতীয় কোনাে কঠিন প্রশ্ন করবেন না আমাকে!

 

মানুষকে ভালােবাসতে হবে!

শিক্ষক : জীবজন্তুকে ভালােবাসতে হবে। সৃষ্টির সেরা জীব মানুষকে ভালােবাসতে হবে। | যে মানুষকে ভালােবাসে না সে মানুষ নয়, পশু।

ছাত্র : স্যার, আপনার মেয়ে কি তাহলে পশু?

শিক্ষক : কেন, আমার মেয়ে পশু হবে কেন?

ছাত্র :না! গত এক বছর যাবৎ আমি আপনার মেয়েকে ভালােবাসি, কিন্তু এক দিনের জন্যও সে আমাকে ভালােবাসেনি!

Bengali Jokes

স্যার কারেন্ট ছিলােনা

শিক্ষকঃ তুমি হােমওয়ার্ক করে আনােনি কেন?

বন্টুঃ স্যার, লােডশেডিং। তাই আলাে ছিলাে

স্যারঃ মােমবাতি জ্বালালেই হতাে।

বন্টুঃ স্যার, লাইটার ছিলাে না…

স্যারঃ লাইটার ছিলােনা কেন?

বন্টুঃ স্যার, বাবা যে রুমে নামাজ পড়ছিলাে ওখানে ছিলাে।

স্যারঃ তাহলে.. ওখান থেকে আনলে না কেন?

বন্টুঃ স্যার, আমার ওজু ছিলােনা….

স্যারঃ ওজু ছিলােনা কেন? বল্টঃ পানি ছিলােনা স্যার… 

স্যারঃ কেন ছিলাে না?

বল্টঃ মােটর কাজ করছিলাে না!!!

স্যারঃ স্টুপিড !! মােটরে কি হয়েছিলাে?

বন্টুঃ স্যার, শুরুতেই তাে আপনাকে বললাম, কারেন্ট ছিলাে না।

 

শুনা কথায় কান দিতে নেই

ছেলেঃ বাবা তুমি নাকি ঘুষ খাও?

বাবাঃ তুমি দেখেছ?

ছেলেঃ না শুনেছি।

বাবাঃ শুনা কথায় কান দিতে নেই। কিছু দিন পর

বাবাঃ তুমি নাকি পরীক্ষায় ফেল করেছ?

ছেলেঃ তুমি কি দেখেছ বাবা?

বাবাঃ না শুনেছি।

ছেলেঃ শুনা কথায় কান দিতে নেই বাবা।

 

স্যার, নেপাল লেপ্টিনের ভেতর অবস্থিত

বল্ট & নেপাল দুই বন্ধু। একদিন তারা ক্লাসে  গেলাে। শিক্ষক সবাইকে উদ্ধেশ্য করে। বললেন, কাল মন্ত্রী কলেজে আসবেন, তােমাদের তিনি যা প্রশ্ন করবেন, তার ঠিক ঠিক উত্তর দিয়াে.. পরের দিন ক্লাসে আসার সময় নেপালের টয়লেটে ধরলাে।

নেপাল ::বল্ট তুই ক্লাসে যা, আমি পায়খানা করে আসি।

বন্টু ::আচ্ছা ঠিক আছে, তারাতারি আয়। ক্লাসে ঢুকার কিছুক্ষন পর মন্ত্রী আসলেন মন্ত্রী সবাইকে উদ্দেশ্য করে বললেন, একটা প্রস্ন করবাে কে উত্তর দেবে?

বন্টু :: আমি দেবাে স্যার, বলুন।

মন্ত্রী :: বলােতাে, নেপাল কোথায় অবস্থিত??

বল্ট ::: স্যার,, নেপাল লেপ্টিনের ভেতর অবস্থিত …. ওরে বন্টু রে কেউ মাইরালা.|

Bengali Jokes

bengali jokes
bengali jokes

আমাকে পিটিয়ে স্কুলে পাঠান

বাবা আর ছেলের মধ্যে কথা হচ্ছে –

বাবাঃ বুঝলে বাবা, এক জায়গায় বারবার যেতে নাই। আদর থাকে না।

ছেলেঃ ঠিকই বলেছ বাবা, সে জন্যই তাে প্রতিদিন স্কুলে যেতে চাই না। অথচ মা  আমাকে পিটিয়ে স্কুলে পাঠান।

 

দুটো থেকেই “ছানা পাওয়া যায়

শিক্ষক ক্লাসে পড়াচ্ছেন

শিক্ষকঃ আচ্ছা বলতে পারাে দুধের সঙ্গে

বিড়ালের কোনখানে মিল আছে?

ছাত্রঃ স্যার, এটা তাে খুব সহজ প্রশ্ন।

শিক্ষকঃ তাহলে বলাে। ছাত্রঃ স্যার দুটো থেকেই “ছানা” পাওয়া যায়।

 

যার যেটার অভাব সে তাে সেটাই নেবে

একদিন এক শিক্ষক তার ছাত্রের কাছে প্রশ্ন করলেন বলতাে তােমার সামনে যদি একদিকে কিছু টাকা আর অন্যদিকে জ্ঞান রাখা হয় তবে তুমি কোনটা নিবে?

অনন্যাঃ এটা সােজা স্যার। আমি অবশ্যই টাকা নেব!

শিক্ষকঃ আমি হলে জ্ঞান্টাই নিতাম। অনন্যাঃ যার যেটার অভাব সে তাে সেটাই নেবে স্যার।

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

বৃষ্টির জন্য আসতে পারিনি

ছাত্র এবং শিক্ষকের মধ্যে কথা হচ্ছে

শিক্ষকঃ কী ব্যাপার! তুমি গতকাল স্কুলে আসনি কেন?

ছাত্রঃ বৃষ্টির জন্য আসতে পারিনি।

শিক্ষকঃ বৃষ্টি, বলাে কী? আরে একে তাে শীতকাল তার উপর গতকাল বৃষ্টি হলে তাে আমরাও টের পেতাম!

ছাত্রঃ টের পাবেন ক্যামনে স্যার! এই বৃষ্টি তাে সেই বৃষ্টি নয়। বৃষ্টি হচ্ছে আমার খালাতাে  বােন। ঈদের ছুটিতে বেড়াতে এসেছে। তাই ওকে ফেলে স্কুলে আসা হয়নি।

Bengali Jokes

 

Bengali Detective Story – এই বছরের সেরা গোয়েন্দা গল্প

 

ভাগ্যিস তােদের কালে আমার জন্ম হয়নি

এক ছাত্র তার বন্ধুকে চিৎকার করে নিহা নিহা বলে ডাকছে

শিক্ষকঃ এই নিরঞ্জন তুমি নিহা নিহা বলে কাকে ডাকছ?

ছাত্রঃ আমার বন্ধুকে স্যার।

শিক্ষকঃ নিহা কন ছেলের নাম হতে পারে?

ছাত্রঃ না, মানে ওর আসল নাম নিরঞ্জ হাওলাদার স্যার! আমরা সংক্ষেপে নিহা বলে ডাকি।

শিক্ষকঃ ভাগ্যিস তােদের কালে আমার জন্ম য়নি। আমার নাম শান্তুনু লাহিড়ী। (শালা)।

 

সরকার নাকি ফেসবুক খুলে দিয়েছে?

এক “আপু’কে হন্তদন্ত হয়ে দৌড়াতে দেখে— আপু কি হয়েছে, এতাে তাড়াহুড়া করে কই  যাচ্ছেন??? পার্লারে যাবাে ভাই,, এখন কথা বলার সময় কম, সেলফি তুলে ফেসবুকে আপলােড করতে হবে,, মাত্রই খবর পেলাম সরকার নাকি ফেসবুক খুলে দিয়েছে মাইরালা

 

ইনজেকসন দেওয়ার জায়গাটা দেখবে?

এক যুবক আর এক তরুণী ট্যাক্সি করে বেড়াতে বেড়িয়েছে। মেয়েটি যুবকটিকে নিয়ে তামাশা করে মজা পায়। হঠাৎ মেয়েটি বলল, দেখবে কাল আমি কোথায় ইনজেকশন নিয়েছিলাম? ছেলেটি দারুণ উৎসাহে সঙ্গে সঙ্গে বলে উঠল, হ্যাঁ হ্যাঁ দেখব, দেখাও। মেয়েটি আঙুল তুলে বলল, ওই হাসপাতালে!

 

আমাকে পুরস্কার দেয়ার মতো ভাঙতি টাকা

রমার হাতব্যাগটা হারিয়ে গিয়েছিল। ব্যাগটা পেয়ে ফেরত দিতে এলো বিল্লাল-
রমা : আশ্চর্য। আমি যখন ব্যাগটা হারিয়েছি, তখন ভেতরে একটা ৫০০ টাকার নোট ছিল, এখন ভেতরে ১০টা ৫০ টাকার নোট- এটা কেমন করে সম্ভব!
সিফাত : সম্ভব। কারণ, এর আগে যখন আমি একজনের ব্যাগ ফেরত দিতে গিয়েছিলাম, তার কাছে আমাকে পুরস্কার দেয়ার মতো ভাঙতি টাকা ছিল না!

 

সোনার মূল্য দ্বিগুণ

মালিক তার কর্মচারীটিকে বোকাসোকাই জানত। আর তাই-
মালিক : আমি বাইরে যাচ্ছি, যদি কোনো ক্রেতা আসে তাহলে বলবি, সোনার মূল্য দ্বিগুণ।
কর্মচারী : জি, ঠিক আছে।

কিছুক্ষণ পর মালিক এসে-
মালিক : আমি যেমন বলেছিলাম তেমন করেছিস তো।
কর্মচারী : হ্যাঁ, এক লোক সোনা বিক্রি করতে এসেছিল। সে এক ভরি ৪৪ হাজার টাকা চাইল। আমি বললাম, ৮৮ হাজারের এক টাকাও কম দেয়া সম্ভব না।

*** ১০ ভরি কিনে ফেলেছি

Bengali Jokes

মরার পরে আমাদের নাম রাখা হয়

একটি মুরগির বাচ্চা লাফাতে লাফাতে এসে মাকে জিজ্ঞেস করল-
বাচ্চা : মা, মানুষের জন্ম হলে তাদের বাবা-মায়েরা কত নাম রাখে। কিন্তু আমাদের নাম নেই কেন?
মুরগি : আমাদেরও নাম রাখা হয় বাবা, তবে মরার পর। মরার পরে আমাদের নাম রাখা হয়।
বাচ্চা : কী নাম রাখা হয়?
মুরগি : চিকেন টিক্কা, চিকেন কাবাব, চিকেন পাকোড়া, চিকেন পক্স, চিকেন কোরমা, চিকেন তন্দুরি ইত্যাদি! আর যে মুরগি মানুষে মারার আগে নিজে নিজে মরে যায়, তার নাম দেয় মরা মুরগি।

 

দু’টো পাথর চিবোতে পারেন না

শাশুড়ি : তোমার দু’টো চোখ আছে কী করতে? চাল থেকে দু’টো পাথর বাছতে পার না? রোজ খেতে বসে একই জিনিস দাঁতে লাগে।
বউ : আপনার বত্রিশটা দাঁত আছে কী করতে? দু’টো পাথর চিবোতে পারেন না?

 

২ চাকার জন্য পার্কিং

কিসলু একদিন নিজের অটোরিকশায় করে প্রেমিকা মলিকে নিয়ে শপিং মলে ঘুরতে গেছে। পার্কিংয়ে গাড়ি দাঁড় করিয়ে কিসলু অটোর একটা চাকা খুলতে শুরু করল-
মলি : অটোর চাকা খুলছ কেন?
কিসলু : দেখতে পাচ্ছ না এখানে লেখা আছে ২ চাকার জন্য পার্কিং?

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

ইয়ারকি মারার মুডে থাকে তখন

মেয়ে : আচ্ছা দাদা, ভালোবাসা কখন হয়?
ছেলে : যখন রাহু, কেতু এবং শনির দশা চলে, সঙ্গে মঙ্গলও খারাপ আর ভগবান তোমার সঙ্গে ইয়ারকি মারার মুডে থাকে তখন!

 

ডিভোর্সের ঘটনা ঘটতো না

আদালতে প্রেমের বিয়ের ডিভোর্সের মামলা চলছে-
১ম আইনজীবী: প্রেমের সময়ে ছেলেরা যতটা আন্তরিক থাকে, বিয়ের পরে যদি তার অর্ধেকও থাকতো। তবে এত ডিভোর্সের ঘটনা ঘটতো না, স্যার।
২য় আইনজীবী: বিয়ের পরে মেয়েরা যে আচরণ করে; বিয়ের আগে যদি তার এক চতুর্থাংশও করতো, তাহলে কিন্তু স্যার, প্রেমের সূত্রে কোনো বিয়েই আর হতো না।

Bengali Jokes

 

bengali jokes king

আপনাকে ৪০ টাকাই দিতে হবে

চিঠি পোস্ট করতে পোস্ট অফিসে গেছে নিতু-
কর্মকর্তা : চিঠিটা যদি দ্রুত পৌঁছাতে চান, খরচ পড়বে ৪০ টাকা। আর যদি স্বাভাবিক নিয়মেই পাঠাতে চান, তাহলে খরচ পড়বে ৫ টাকা।
নিতু : সমস্যা নেই, আমার তেমন কোনো তাড়া নেই। প্রাপক তার জীবদ্দশায় চিঠিটা পেলেই হলো।
কর্মকর্তা : তাহলে আপনাকে ৪০ টাকাই দিতে হবে!

 

ট্রেন দুর্ঘটনা দেখার শখ

রেলওয়েতে চাকরির ইন্টারভিউ হচ্ছে। একটি চটপটে ছেলেকে সবার পছন্দ হল। চেয়ারম্যান একটু যাচাই করে নিতে চাইলেন-
চেয়ারম্যান : ধর, একটা দ্রুতগামী ট্রেন আসছে। হঠাৎ দেখলে লাইন ভাঙা। ট্রেনটা থামানো দরকার। কী করবে তুমি?
প্রার্থী : লাল নিশান ওড়াব।
চেয়ারম্যান : যদি রাত হয়?
প্রার্থী : লাল আলো দেখাব।
চেয়ারম্যান : লাল আলো যদি না থাকে?
প্রার্থী : তা হলে আমার বোনকে ডাকব।
চেয়ারম্যান : বোনকে! তোমার বোন এসে কী করবে?
প্রার্থী : কিছু করবে না। ওর অনেক দিনের শখ একটা ট্রেন দুর্ঘটনা দেখার!

 

৩২টা ঘুসি মেরে পেয়েছি

পাপ্পু একবার এক দোকানে গেছে রেসলিং এ জয়ী হওয়া ঘড়ি ঠিক করার জন্য-
পাপ্পু : আমি আমার এই ঘড়িটা ঠিক করতে চাই। কত টাকা লাগবে?
দোকানদার : আপনি যা দিয়ে কিনেছেন তার অর্ধেক দিলেই চলবে।
পাপ্পু : আমি ঘড়িটা ৩২টা ঘুসি মেরে পেয়েছি। তো কয়টা দিতে হবে?

 

মাইয়ার ফেসবুক ফ্রেন্ড

হঠাৎ বাসায় কলিংবেল। গৃহকর্ত্রী গেলেন দরজা খুলতে। খুলেই তিনি অবাক, এক কাজের বুয়া দাঁড়িয়ে আছে।
গৃহকর্ত্রী : কে আপনি?
মহিলা : আপা, আমি আপনার ফেসবুক ফ্রেন্ড। গতকাল আপনি একটা স্ট্যাটাস দিলেন যে, আপনার বাসার কাজের বুয়া চইলা গেছে। সেইটা দেখার পর আমি আমার আগের বাড়ির কাজ ছাইড়া আপনার বাড়ি চইলা আইলাম।
গৃহকর্ত্রী : বাসার ঠিকানা কোথায় পেলে?
মহিলা : আপা, আপনার ছেলে দিছে। ও আবার আমার মাইয়ার ফেসবুক ফ্রেন্ড।

 

তার অনেকগুলো গার্লফ্রেন্ড

এক ছেলেকে তার মা বলছেন-
মা : খারাপ ছেলেদের সাথে মিশবি না।
ছেলে : ঠিক আছে মা।

এরপর থেকে ছেলেটি আর ছেলেদের সাথে মেশে না। কেননা সে তার মায়ের কথা রাখছে।
কিছুদিন পর তার মা দেখলেন, এখন তার অনেকগুলো গার্লফ্রেন্ড।

Bengali Jokes

 

bengali jokes
bengali jokes

আমার বাড়িতে ফিরে এসেছে

এক লোক তার পোষা কবুতরগুলো হাটে তুলেছেন। ক্রেতাকে বলছেন-
বিক্রেতা : এই কবুতরগুলো নেন ভাই, খুবই প্রভুভক্ত।
ক্রেতা : তাই নাকি? তা কেমন করে বুঝলেন খুব প্রভুভক্ত?
বিক্রেতা : আমি যতবারই এগুলো বিক্রি করেছি, ততবারই আমার বাড়িতে আবার ফিরে এসেছে।

 

আপনার ঘরে কেউ ঢুকবে না

এক গরিব লোকের ঘরে চোর এসে আতিপাতি করে খুঁজে নিয়ে যাওয়ার মতো কিছুই পেল না। হতাশ হয়ে চোর যখন চলে যাচ্ছে-
লোক : দরজাটা বন্ধ করে যেও।
চোর : দরজা খোলা থাকলেও সমস্যা নেই। আপনার ঘরে কেউ ঢুকবে না।

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

একটি কেকের দাম কত

রুবেল এক দোকানে গেছে কেক কিনতে-
রুবেল : ভাই কেকের দাম কত?
দোকানদার : দুটি কেকের দাম ২৫ টাকা।
রুবেল : তাহলে এই একটি কেকের দাম কত?
দোকানদার : ১৩ টাকা।
রুবেল : ঠিক আছে, ১২ টাকায় অন্য কেকটি দিয়ে দেন।

 

সব সম্পদের মালিক তো তুমিই

এক বড় চাষির একমাত্র মেয়েকে বিয়ে করার জন্য ঘটক এক দিনমজুরকে প্রস্তাব দিলেন।
প্রস্তাব শুনে দিনমজুর বলল-
দিনমজুর : আমাকে কয়েকটা দিন সময় দিন। কিছু টাকাপয়সা রোজগার করে নিই।
ঘটক : টাকাপয়সা রোজগারের চিন্তা তোমাকে করতে হবে না। সব সম্পদের মালিক তো তুমিই হবে। এমনকি বাপ হওয়ার জন্যও তোমার পাঁচ মাসের বেশি অপেক্ষা করতে হবে না। সবকিছু তৈরিই আছে।

 

গত রাতে নিশ্বাস নিতে ভুলে গেছিলেন

বাড়ির মালিক মারা গেছেন। চাকর হাউমাউ করে কাঁদছে। প্রতিবেশীরা এসে জিজ্ঞেস করল, ‘কী হয়েছিল তোমার মালিকের?’
চাকর জবাব দিল, ‘ভারি ভুলোমনা মানুষ ছিলেন তিনি। বোধ হয় গত রাতে নিশ্বাস নিতে ভুলে গেছিলেন।’

Bengali Jokes

 

Thakurmar Jhuli Golpo ( চাষা ও চাষাবউ )

পাপ ধুয়ে ফেলা

সাধুবাবা তার অনুসারীদের নিয়ে বঙ্গোপসাগরে গেছেন স্নানের জন্য। উদ্দেশ্য পাপ ধুয়ে ফেলা। গোসল শেষ করে সবাই উঠলো কিন্তু সাধুবাবার ওঠার কোন নাম নেই।
তা দেখে একজন বলল, ‘কি সাধুবাবা, আপনি উঠছেন না কেন?’
সাধুবাবা উত্তরে বললেন, ‘বৎস, পাপ ধোয়ার সাথে সাথে গামছাটাও যে চলে যাবে তা ভাবতেই পারিনি।’

 

টয়লেট পরিষ্কার করি

একদিন ছেলে বসে পড়ছিল তখন বাবা ছেলের পাশে বসল-
বাবা : তুই সারাদিন এমন চুপচাপ থাকিস কেন?
ছেলে : কেন বাবা আমি তো কথা বলি।
বাবা : তোকে অযথা এত বকাঝকা করি অথচ কিছু বলিস না। প্রতিবাদ করিস না।
ছেলে : কেন বাবা, আমি তো প্রতিবাদ করি।
বাবা : কই করিস? আমি যে দেখি না।
ছেলে : কেন বাবা, তুমি বকা দিলে আমি টয়লেটে যাই।
বাবা : টয়লেটে গেলে কি রাগ কমে? টয়লেটে গিয়ে কি করিস?
ছেলে : টয়লেট পরিষ্কার করি।
বাবা : টয়লেট পরিষ্কার করলে কি রাগ কমে?
ছেলে : কেন আমি তোমার দাঁত পরিষ্কার করার ব্রাশ দিয়ে টয়লেট পরিষ্কার করি।

 

নুন দিলে তো কথাই নেই

কলম মিয়ার মুলার ক্ষেত পোকায় খেয়ে শেষ করে দিচ্ছে। তাই সে গেল কৃষি বিশেষজ্ঞের কাছে।
কলম মিয়া : ডাক্তার সাব, আমার মুলার ক্ষেত তো পোকায় খেয়ে শেষ করে দিল। এখন কী করি?
কৃষি বিশেষজ্ঞ : আপনি এক কাজ করুন। পুরো ক্ষেতে লবণ ছিটিয়ে দিন।
কলম মিয়া : আহা! কী পরামর্শ? নুন ছাড়াই খেয়ে শেষ করি ফেইলছে আর নুন দিলে তো কথাই নেই।

 

স্যার আপনি বন্টুর পক্ষে রায় দিয়েছেন?

দুই ছাত্র মারামারি করার পর শিক্ষক তাদের শাস্তি হিসেবে তাদের নিজের নাম ১০০ বার করে লিখতে বললেন।

১ম ছাত্র :- স্যার আপনি বন্টুর পক্ষে রায় দিয়েছেন।

শিক্ষক:- কেন! আমি তাে দু’জনকেই। সমানভাবে ১০০ বার নাম লিখতে দিয়েছি!!

১ম ছাত্র :- স্যার ওর নাম হচ্ছে বন্দু আর। আমার নাম হচ্ছে ওমর ইবনে আব্দুল গাইয়ুম মাইরালা

Bengali Jokes

এবার আমার দাদার বিয়ে!

কর্মচারী: স্যার, একটা দিন ছুটি চাই।

বস: কেন? আবার কী?

কর্মচারী: স্যার, আমার দাদা…

বস: আবার দাদা? গত তিন মাসে তুমি চারবার দাদির মৃত্যুর কথা বলে ছুটি নিয়েছ।

কর্মচারী: স্যার, এবার আমার দাদার বিয়ে!

 

কলমের আচড়

স্কুলপড়ুয়া দুই বন্ধুর পরীক্ষার শেষে স্কুল মাঠে দেখা

১ম বন্ধু : কিরে, তাের পরীক্ষা কেমন হলাে?

২য় বন্ধু : পরীক্ষা ভাল হয়নি রে! তবে ৫ নম্বর নিশ্চিত পাবাে।

১ম বন্ধু :কীভাবে?

২য় বন্ধু :পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য ছিল ৫ নম্বর! তাই আমি পরীক্ষার খাতায় কলমের। একটা আচড়ও দেইনি! তাই ৫ নম্বর নিশ্চিত পাবাে।

১ম বন্ধু : হায়! সর্বনাশ হয়েছে- আমিও তাে তাের মতাে পরীক্ষার খাতায় কলমের একটা আচড়ও দেইনি! আমাদের দুই জনের খাতা একই রকম দেখলে শিক্ষিকা মনে করবে না যে আমরা দুজনে নকল করেছি!

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

তােরটা দেখে ফেলেছে!

খে ফেলেছে! শান্ত একবার মন খারাপ করে বসে আছে। ওর বাবা বললেন, কী রে, মন খারাপ কেন?’ শান্ত কিছুতেই কিছু বলে না, একদম চুপ। বাবা কাঁধে হাত রেখে বললেন, ‘আরে বল। মনে কর আমি তাের বাবা না, তাের বন্ধু।’ এবার শান্ত মুখ খুলল, আর বলিস ভাই। গতকাল আমারটাকে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়েছিলাম। তােরটা দেখে ফেলেছে। তারপর আমাকে কি মারটাই না মারল!

 

নির্বাচনের প্রচার প্রচারনায় নলাদা

নির্বাচনের প্রচার প্রচারনায় নলাদা বক্তব্য দিচ্ছেন, হঠাৎ বক্তব্যের মাঝে বললেন, এই এলাকায় যত খাল আছে সব খানে ১ টা করে ব্রিজ করে দেবাে। সাথে সাথে সহকারী বলল বস এই এলাকায় কোন খাল নাই তাে। নলাদা এ কথা শুনে বলল এই এলাকায় খাল নাই বলে কি? তাহলে এই এলাকায় প্রথম খাল কাটমু তারপর ব্রিজ করে দেবাে।

Bengali Jokes

bengali jokes
bengali jokes

জ্বর এর ভয়াবহতা

 রােগী : আজ আমি বুঝতে পারছি সামান্য  জ্বর যে কত ভয়াবহ হতে পারে।

ডাক্তার :কিভাবে বুঝলেন?

রােগী : আপনার বিলের কাগজটা দেখে!

 

সালােকসংশ্লেষণ কাকে বলে?

পন্টু কোনাে দিন পড়া পারে না। কিন্তু সেদিন হঠাৎ জীববিজ্ঞান ক্লাসে শিক্ষক পড়া ধরায় হাত তুলল সে।

স্যার : আরে বাহ্। পন্টু বল তাে। সালােকসংশ্লেষণ কাকে বলে?

পন্টু : (মাথা চুলকে) স্যার পড়ে এসেছি। কিন্তু মনে পড়ছে না।

স্যার : কতটুকু মনে আছে?

পন্টু: স্যার, শেষের দিকটা।

স্যার : ঠিক আছে। শেষের দিকটাই বল।

পন্টু :একেই সালােকসংশ্লেষণ বলে!

 

জঠিল গনিত ও সহজ সমাধান

পরীক্ষায় প্রশ্ন এসেছে, লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে লন্ডনের দূরত্ব ৮০০০ কিলােমিটার। একজন লােক লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে গাড়িতে ঘণ্টায় ১৫০ কিলােমিটার বেগে লন্ডন রওনা হলাে এবং অপর একব্যক্তি। লন্ডন থেকে গাড়িতে ১৬০ কিলােমিটার বেগে লস অ্যাঞ্জেলেসে রওনা হল তাদের দুজনের কোথায় দেখাহবে?’ ছােট্ট জনি উত্তর লিখল, ‘জেলখানায়! এত জোরে গাড়ি চালাবেন, পুলিশ বুঝি আঙুল চুষবে?

 

সিংহের মুখােমুখি হওয়া

রবিন :আমার সিংহের মুখােমুখি হওয়ার ঘটনাটা তােকে বলেছিলাম?

সালেক : না তাে, কী হয়েছিল?

 রবিন:সঙ্গে বন্দুক নেই, সিংহটা সমানে গর্জাচ্ছে, এগিয়ে আসছে…।

সালেক : হায় হায়, তুই তখন কী করলি?

রবিন : বানর দেখতে পাশের খাঁচায় চলে গেলাম!

 

সাইকেল চালানাে

বাবা : তােকে না বলেছিলাম পাস করলে সাইকেল কিনে দেব। তবু ফেল করলি! পড়া বাদ দিয়া কী করছিলি?

ছেলে : সাইকেল চালানাে শিখছিলাম!

Bengali Jokes

 

Premar Golpo ( অমর প্রেম ) জীবন বদলে দেবে এমন ভালোবাসা

 

ফেক আইডি

মন্টু: বাবা আজ তােমাকে একটা কথা বলতে চাই?

বাবা:বল

মন্টু: আমি না মেয়েদের নাম দিয়ে ফেসবুকে পাঁচটা ফেক আইডি খুলছি।

বাবা: হারামজাদা! তাের আর কোন কাজ নাই? এইসব আকাম করছ? তা এই কথা তুই আমাকে কেন বলছিস?

মন্টু : বাবা তুমি যে গত এক মাস যাবত স্বর্ণা চৌধুরী নামের মেয়েটাকে পটানাের চেষ্টা করতাছাে ঐটা আমিই!

 

অতিথির আবির্ভাব

 এক বাড়িতে একজন অতিথি এসেছেন। অনেকদিন হয়ে গেল তবু নড়বার কোন লক্ষণ নেই। স্বামী-স্ত্রী কেউ কিছু বলতে পারে না লজ্জায়। একদিন অতিথিকে শুনিয়ে পাশের ঘরে দু’জন খুব ঝগড়া করতে লাগলাে। স্ত্রীকে মারধর এবং স্ত্রীর কান্নার আওয়াজও শােনা গেল। অবস্থা সুবিধার নয় ভেবে অতিথি ভদ্রলােক তার সুটকেস নিয়ে বেরিয়ে গেল। স্বামী-স্ত্রী জানালা দিয়ে তা দেখে ঝগড়া বন্ধ করে খুব হেসে নিল যে, বুদ্ধি করে তারা অতিথি তাড়াতে পেরেছে। স্বামী বলল, ‘তােমার লাগেনি তাে? যে জোরে কাঁদছিলে। স্ত্রী বলল, ‘ধুর একটুও লাগেনি। এ তাে লােক দেখানাে কেঁদেছিলাম। এক সময় অতিথির আবির্ভাব। সে হাসতে হাসতে বলল, আমিও কিন্তু লােক দেখানাে গিয়েছিলাম!

 

সেইরাম জোকস – দাঁতে খুব ব্যথা!

জুয়েলের দাঁতে খুব ব্যথা। ডাক্তারের কাছে গেলে ডাক্তার বললেন, দাঁত তুলতে হবে। শুনে তাে ভয়েই তানভীরের আত্মারাম খাঁচা ছাড়া। হওয়ার যােগাড়। ও আবার এইসব অপারেশন খুব ভয় পায়। সব শুনে ডাক্তার বললেন, তাহলে আপনি এই ওষুধটা খেয়ে নিন, দেখবেন দাঁত তুলতে একদম ব্যথা পাবেন না। আর সাহসও যাবে বেড়ে। শুনে তানভীরও। খুব করে ওষুধটা খেয়ে নিলাে। এবার ডাক্তার জিজ্ঞেস করলাে, কি, এখন সাহস পাচ্ছেন। তাে? – পাচ্ছি না মানে! এবার দেখি, কার এমন বুকের পাটা যে আমার দাঁত তুলতে আসে!

 

দাদা মারা গেছেন!

দাদা: যা, পালা তাড়াতাড়ি। তুই আজকে স্কুলে যাসনি। তাই তাের হেডমাস্টার বাড়ির দিকে আসছে।

নাতি : আমি পালামু না দাদু। তুমি বরং পালাও কারণ আমি স্যারকে বলেছি আমার দাদা মারা গেছেন তাই স্কুলে যাইনি!

 

দমকল বাহিনী

আজিজ মিঞার কারখানায় আগুন লেগেছে। জলদি আগুন নেভাতে না পারলে সর্বনাশ। আজিজ খবর দিলেন দমকলকর্মীদের। চটজলদি হাজির হলাে দমকল বাহিনী। কারখানার সামনের ছােট গলিটার দুই পাশের  দোকানগুলাে ভেঙে, সদর দরজা গুড়িয়ে দিয়ে, দেয়াল ভেঙে সােজা অগ্নিকাণ্ডের স্থলে গিয়ে থামল গাড়ি! প্রচণ্ড ঝাঁকি খেয়ে গাড়ির পেছনে রাখা পানির ট্যাংকিটা ছিটকে গিয়ে পড়ল আগুনে ব্যস, নিভল আগুন। দমকলকর্মীদের তৎপরতা দেখে ভীষণ খুশি আজিজ। তিনি দমকল বাহিনীর প্রধানের হাতে ১০ হাজার টাকা পুরস্কার তুলে দিলেন। জিজ্ঞেস করলেন, ‘এই টাকা দিয়ে আপনারাকী করবেন বলুন তাে?’ দমকল বাহিনীর প্রধান : প্রথমেই গাড়ির ব্রেকটা ঠিক করাব!

Bengali Jokes

ক্লাসে বল্টুর প্রথম দিন-

(এক ছাত্রীর পাশে গিয়ে)

বল্টু- আমি কি তোমার পাশে বসতে পারি?

ছাত্রী- (চিৎকার করে) না তুমি এক রাতের জন্য আমার কাছে থাকতে পারো না!!

(বল্টু শুনে খুব বিব্রত বোধ করল এবং ক্লাসের বাকিরা বল্টুর দিকে বাঁকা চোখে তাকিয়ে রইলো।)

— এই কথা শুনে বল্টুর চিৎকার- বলে উঠল- ‘কী মাত্র এক রাতের জন্য ২০,০০০ টাকা!!’

— মেয়েটির দিকে এবার সারা ক্লাস আড়চোখে তাকিয়ে, মেয়েটি ভীষণ লজ্জা পেলো।

— একটু পরে বল্টু মেয়েটির কানের কাছে গিয়ে বললো, আমি আইনের ছাত্র তাই বুঝি কী-ভাবে মানুষকে দোষী করতে হয়!!

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

মাঝরাতে বেডরুমের টেলিফোন বেজে উঠলো

স্বামী(স্ত্রী’কে) – কেউ আমার কথা জিজ্ঞাসা করলে বলে দেবে আমি বাড়িতে নেই।

স্ত্রী(ফোन ধরে) – আমার স্বামী বাড়িতেই আছে, বলেই ফোনটা কেটে দিল।

স্বামী(রেগে গিয়ে) – আমি বললাম না, কেউ আমার কথা জিজ্ঞাসা করলে বলবে আমি বাড়িতে নেই।

বউ-কে মাথায় তুলেও তিরস্কার পেল বাবু, এক মজাদার বাংলা জোকস

বাবু আর বাবুর স্লিম-বউ ভোরবেলায় মর্নিং-ওয়াকে বেরিয়েছে ৷ হঠাৎ বাবু দেখতে পেলো একটা বাঘা কুত্তা ওদের দিকে তেড়ে আসছে ৷ নির্ঘাত কামড় দেবে বুঝে, বাবু হঠাৎ তার বউকে দু’হাতে মাথার ওপর তুলে নিয়ে দাঁড়িয়ে গেল ৷ কামড়ালে তাকে কামড়াক ৷ বউ-এর গায়ে যেন আঁচড় না পড়ে ৷এই পরিস্থিতিতে বাঘা কুত্তাটা কখনও পড়েনি ৷ তাই ঘাবড়ে গিয়ে বার কতক ঘ্যাঁক ঘোঁক করে ধমক দিয়ে ফিরে গেলে। বাবু তার সুন্দরী বউকে নিচে নামালো ৷বাবু ভাবলো, তার একটা হামি পাওনা হল বউ-এর কাছ থেকে ৷

কিন্তু হা!ভগবান ! বউ তো রেগে মেগে কাঁই ! চিৎকার করে বলছে, ‘আজ পর্যন্ত কোনও মানুষ দেখিনি, যে কুত্তা তাড়াতে ইট পাটকেলের বদলে নিজের বউকে ছুঁড়ে মারতে চায়৷’ মরাল অব দ্য স্টোরী : বউ-এর জন্য জীবন দিলেও বউ-এর থেকে মুখ ঝামটা ছাড়া আর কিছু জুটবে না । 😜😜 বিবাহিত ভ্যালেন্টাইন দের জন্য

Bengali Jokes

 

Bangla Jokes Comedy

বৌদির শাড়িতে সরকারবাবুর লুঙ্গি! তারপর যা হল

পাঁচতলা ফ্ল্যাটের চারতলায় থাকেন সুন্দরী এক বৌদি … . সেদিন সকালে বৌদি ঝুলবারান্দায় শাড়ি মেলেছেন … . লম্বা লাল হলুদ শাড়িটা , চারতলার ঝুলবারান্দা থেকে ঝুলে সোজা নিচে তিন তলার , সরকারবাবুর ঝুল বারান্দার উপর , হাওয়ায় দোল খাচ্ছিলো … . সরকারবাবু শাড়ির শেষপ্রান্তে , দুটি ক্লিপ দিয়ে ভিজে লুঙ্গিটা ঝুলিয়ে দিলেন … . সুন্দরী বৌদির সুন্দর শাড়ি আর সরকারবাবুর লুঙ্গি মৃদু হাওয়ায় একসঙ্গে দোল খেতে লাগলো … . “দোলে দোদুল দোলে ঝুলনা দোলে কৃষ্ণ দোলে ঝুলনা…. … … মাধব কহিছে ওগো রাধা তুমি আমি একই সুরে বাঁধা এ বাঁধন কভু খুল না …..” . না !!….. এমন কোনও রোমান্টিক সিচুয়েশন তৈরি হয়নি …. বিকালে যেটা হয়েছিল , সে এক ইউনিক সিচুয়েশন …. . বৌদি শাড়ি তুলতে এসে সরকারবাবুকে ডেকে বললেন , ” আমি শাড়ি তুলছি .., আপনি লুঙ্গি খুলুন ..”

অর্ধেক খুলে দিল

একদিন এক মেয়ে স্কিনটাইট স্কার্ট পরে বের হয়েছে বন্ধুর বাসার উদ্দ্যেশে গাড়ি নষ্ট থাকে সে গেল নিকটস্থ বাস স্টপেজে । যথারীতি বাস আসলো, সে বাসে উঠার চেষ্টা করলো, কিন্তু পারল না । স্কার্টটি খুব টাইট বলে বাসের সিড়িতে পা রাখতে সমস্যা হচ্ছিল । কি আর করা, বাসে তো উঠতে হবে, তাই সে একটু পিছিয়ে এসে স্কার্টের পিছনের চেইনটা একটু খুলে দিল । কিন্তু এবারও বাসের সিড়িতে পা রাখতে পারল না । সে আবার পিছনে এসে স্কার্টের পিছনের
চেইনটা আরেকটু খুলে দিল । কিন্তু এবারও বাসের সিড়িতে পা রাখতে পারল না । এদিকে বাসের সব যাত্রী আর আশেপাশের লোকজন হা হয়ে মেয়েটির কান্ড-কারখানা দেখতে লাগলো । কিন্তু হতোদ্যম না হয়ে মেয়েটি আবারও একটু পিছিয়ে এসে স্কার্টের পিছনের চেইনটা একটু প্রায় অর্ধেক খুলে দিল ।
কিন্তু এবারও বাসের সিড়িতে পা রাখতে পারল না । এবার আর কোনো উপায় না দেখে লজ্জাশরমের মাথা খেয়ে পুরো চেইনটা খুলে স্কার্টটা দুহাতে আকড়ে
চেষ্টা করার সময় ঠিক তার পিছনে দাড়িয়ে থাকা দুষ্ট ছেলে দুহাতে তার কোমর ধরে সিড়িতে উঠতে সাহায্য করলো । কিন্তু একি! এত দেখি উপকারের বিপরীত শাস্তি। মেয়েটা পিছন ফিরে দুষ্ট ছেলেকে ঝাড়ি মেরে বলল, আপনার সাহস কত বড়! অচেনা একটা মেয়ের গায়ে হাত দিছেন! পেয়েছেন কি?
মেয়ে দেখলে খালি মাথা ঠিক থাকে না! আপনি কি আমার বন্ধু যে আমার গায়ে হাত দিছেন?”
দুষ্ট ছেলে তখন স্মার্টলি বলল,”দেখুন, আপনি আমাকে চিনেন না, আমিও আপনাকে চিনি না । কিন্তু যখন আপনি পিছনদিকে হাত দিয়ে আমার প্যান্টের চেইনটা অল্প অল্প করে পুরোটা খুলে ফেললেন, তাই আমি ভাবলাম আপনি বোধ হয় আমার বান্ধবী!

Oporadhi Lyrics (অপরাধী লিরিক্স) – Arman Alif

 

পরিচিত রেস্টুরেন্টে খাওয়া শেষে খদ্দের ওয়েটারকে ডেকে বলল,
‘তোমাদের আগের বাবুর্চিটা মারা গেছে, তাই না?’
ওয়েটার অবাক হয়ে জিজ্ঞেস করে, ‘আপনি কি করে জানলেন, স্যার? খাবার কি খারাপ হয়েছে?’
খদ্দের জবাব দেয়, ‘না…খাবার ঠিকই আছে… তবে আগে সাদা চুল পেতাম, ইদানীং কালো চুল পাচ্ছি।

শোভা: বুঝলি সোমা,আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি অয়নকে বিয়ে করব না।
সোমা: সে-কি-রে,পাঁচ বছর ধরে প্রেম করলি,এখন বিয়ে করবি না কেন?
শোভা: জানিস,অয়ন একেবারে নাস্তিক।
সোমা: ও নাস্তিক তাতে তোর কি,তুই তো আর নাস্তিক নোস।
শোভা: ও নরক আছে বলে বিশ্বাস করে না। ভয়ানক ব্যাপার নয়?
সোমা: ঘাবড়াচ্ছিস কেন,বিয়েটা হতে দে। কয়েক দিনের মধ্যেই বাছা ধন বুঝে যাবেযে,নরক সত্যিই আছে

এক তরুণী মেয়ে দোকানে গেল একটা কথা বলা টিয়ে পাখি কিনতে।
দোকানদার একটা পাখির খুব প্রশংসা করল, এটা নাকি সব বুঝে , নিজে থেকেই অনেক কিছু শিখে নেয়! মেয়েটা খুশি হয়ে পাখিটাকে গিয়ে জিজ্ঞেস করলঃ
‘আচ্ছা আমাকে দেখে আমার সম্পর্কে কি মনে হয় তোমার?’ পাখিটা ঠাস করে বলে বসলঃ ‘বেশী সুবিধার না, বাজে মাইয়া!’মেয়েতো পুরাই টাশকি খেয়ে গেল!
রেগেমেগে দোকানদারকে গিয়ে অভিযোগ করল!
দোকানদার পাখিটাকে ধরে এক বালতি পানিতে কয়েকটা চুবানি দিল , এরপর
জিজ্ঞেস করলঃ ‘আর খারাপ কথা বলবি?’
পাখিটা ভালো মানুষের(!) মত মাথা নাড়ায় চাড়ায় বললোঃ ‘না না , আর বলব না’
মেয়েটা খুশি হয়ে আবার পাখিটাকে জিজ্ঞেস করেলোঃ ‘আচ্ছা আমি যদি রাতে ঘরে
একজন পুরুষ নিয়ে ঢুকি , তুমি কি মনে করবে?’
পাখিটি বললোঃ ‘তোমার স্বামী’
মেয়েটি বললোঃ ‘যদি দুজনকে নিয়ে ঢুকি?’
পাখিটি বললোঃ ‘তোমার স্বামী আর দেবর!’
মেয়েটি বললোঃ ‘যদি তিনজনকে নিয়ে ঢুকি?’
পাখিটি বললোঃ ‘তোমার স্বামী , দেবর আর ভাই ।’
মেয়েটি বললোঃ ‘যদি চারজনকে নিয়ে ঢুকি?’
পাখিটা: দোকানদারকে চেঁচিয়ে ডাকলঃ ‘ঐ মিয়া বালতি নিয়া আও !! আগেই কইছিলাম এই মাইয়া সুবিধার না , বাজে মাইয়া!

একবার কলকাতায় ট্রাম ভাড়া কমিয়ে অর্ধেক করে দেওয়া হলো। সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়ে গেল ব্যাপক আন্দোলন। হকচকিত ট্রাম কর্তৃপক্ষ জানতে চাইল,ভাইরে, আমরা তো ভাড়া বাড়াইনি, কমিয়েছি। তাহলে? ‘আগে হেঁটে অফিস যেতুম। ট্রাম ভাড়া বাবদ ১ টাকা বেঁচে যেত। আর এখনো হেঁটে অফিস যাই। কিন্তু সঞ্চয় হয় মাত্র পঞ্চাশ পয়সা।’

সংসদ ভবনের গেটের সামনে ভাঙাচোরা একটা সাইকেলে তালা মেরে রেখে যাচ্ছিল এক লোক। তা দেখে হায় হায় করে ছুটে আসে গার্ড। চিৎকার করে বলে,  ওই ব্যাটা, এখানে সাইকেল রাখছিস কী বুঝে? জানিস না, এ পথ দিয়ে এমপি,
মন্ত্রী-মিনিস্টাররা যাতায়াত করেন। লোকটা একগাল হেসে জবাব দেয়, কোনো সমস্যা নাই ভাইজান, সাইকেলে তালা মাইরা দিছি।

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

গাড়ির চাকা এমনভাবে পাংচার হলো কী করে?

– একটা কাচের বোতল চাকার নিচে পড়ে ভেঙে গিয়েছিল স্যার।
– গাড়ি চালানোর সময় তোমার চোখ থাকে কোথায়, শুনি? একটা আস্ত বোতল চাকার নিচে এলো আর তুমি কিছুই টের পেলে না!
– স্যার, চাকার নিচে একটা লোক এসে পড়েছিল। আর বোতলটা ছিল ওই লোকের পকেটেই। তাই বোতলটি দেখতে পাইনি, স্যার।

Bengali Jokes

bengali jokes
bengali jokes

 পিতা ব্যবসার দায়িত্ব দিচ্ছেন পুত্রকে

তাকে নিয়ে ছাদে গেলেন।
তারপর বললেন, ছাদের একদম ধারে গিয়ে দাঁড়ারে এবং আমি যখন বলব লাফ দাও তখন লাফ দেবে।
– সে কী বাবা, তিনতলা থেকে লাফ দেব? আমি মারা যাব যে!
– শোন, ব্যবসায় উন্নতি করতে চাও তো, আমার ওপর বিশ্বাস আছে?
– হ্যাঁ।
– তাহলে লাফ দাও।
ছেলে লাফ দিল এবং যথারীতি মাটিতে আছড়ে পড়ে দুই পা ও এক হাত ভেঙে মুমূর্ষু অবস্থায় পড়ে রইল। বাবা দ্রুত সিঁড়ি ভেঙে ছেলের কাছে ছুটে গেলেন এবং বললেন, ব্যবসায় এটাই তোমার প্রথম শিক্ষা কাউকে বিশ্বাস করবে না।

অফিসের নতুন বড়কর্তা কাজের ব্যাপারে খুব কড়া। কাউকে একবিন্দু ছাড় দেন না। চাকরির প্রথম সপ্তাহেই একদিন খেপে গেলেন তিনি। রেগেমেগে রুম থেকে বেরিয়েই এক লোককে পাকড়াও করলেন।
অফিসের সবার সামনে চিৎকার করে বললেন, সপ্তাহে কত টাকা মাইনে পাও তুমি, শুনি? লোকটা ভয়ে কাঁপতে কাঁপতে বলল, ৩০০০ টাকা।
বড়কর্তা তাঁর মুখের ওপর ৩০০০ টাকা ছুড়ে দিয়ে বললেন, এই নাও তোমার এ সপ্তাহের মাইনে, আর বেরিয়ে যাও।
লোকটা বেরিয়ে যাওয়ার পর বললেন বড়কর্তা, প্রয়োজন হলে এভাবেই অফিসের প্রত্যেককে বের করে দেব আমি। যাই হোক, ওই লোকটা আমাদের অফিসে কী কাজ করে?
কর্মচারীদের একজন বলল, স্যার, ও আমাদের এখানে পিৎজা ডেলিভারি দেয়!

এক চোর মুরগি চুরি করে সেগুলো হাটে বিক্রি করতে যাচ্ছে। পথে হাত ফসকে ছাড়া পেয়ে মুরগিগুলো উড়ে পালিয়ে গেল। গোমরা মুখে বাড়ি ফিরল সে।
চোরের স্ত্রী প্রশ্ন করল, মুরগিগুলা বেইচ্যা কেমুন লাভ করলা?  চোরের উত্তর, না রে বউ, আইজ লাভ করতে পারি নাই। যে দামে কিনছিলাম, সে দামেই বেইচ্যা দিছি!

এক অফিসের কর্মচারীরা সবাই পৌঁছে যান একদম ঠিক সময়ে। বসকে বললেন
তাঁর এক বন্ধু, তোমার কর্মচারীদের কী এমন জাদু করেছ যে তাঁরা এত সময়ানুবর্তী হয়ে গেল?
বস হাসতে হাসতে বললেন, জাদু না হে, আমার অফিসে একটা চেয়ার কম। সবাই সময়মতো পৌঁছাতে চেষ্টা করে, যেন দাঁড়িয়ে থাকতে না হয়!

১ম বন্ধু : জানিস, আমি সাঁতার কেটে পুরো নদী পার হতে পারি।
২য় বন্ধু : আমি তো সাঁতার না কেটেই পার হতে পারি।
১ম বন্ধু : কীভাবে?
২য় বন্ধু : কেন, নৌকাতে চড়ে!

রাশেদ: কিরে দোস্ত, মন খারাপ কেন তোর?
শাহেদ: আর বলিস না, একটা বই কেনার জন্য বাবার কাছে টাকা চেয়েছিলাম।
রাশেদ: টাকা দেয়নি?
শাহেদ: না, বইটা নিজেই কিনে এনেছে।

শিক্ষক: আচ্ছা, তুমি যে লিখলে মানুষ ক্রমাগত বদলায় এর কোনো বাস্তব উদাহরণ দেখাতে পারবে?
ছাত্র: হ্যাঁ…পারব। আমাদের পাড়ার সুমন ভাই যখন আমাদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলতেন, তখন আমি তাঁকে সুমন ভাই ডাকতাম।
তারপর যখন তিনি আমাদের বাসায় টিউশনি নিলেন, তখন আমি স্যার ডাকতাম। আর তিনি আমার আপুকে নিয়ে ভেগে যাওয়ার পর থেকে আমি তাঁকে দুলাভাই ডাকি।

একজন বিখ্যাত বাবুর্চির বাসায় দাওয়াতে এসেছেন তাঁর বেশ কিছু বন্ধুবান্ধব, যাঁদের মধ্যে একজন আলোকচিত্রীও আছেন।
অতিথি আপ্যায়নের ফাঁকে বাবুর্চির দেখা হয়ে গেল তাঁর আলোকচিত্রী বন্ধুর সঙ্গে, আরে, বন্ধু! কত দিন পর দেখা হলো তোমার সঙ্গে! তোমার তোলা ছবি আমি দেখেছি।
সব কটি ছবিই চমর‌্যাকার। তোমার ক্যামেরাটা নিশ্চয়ই খুবই ভালো আর দামি?
উত্তরে কিছুই বললেন না আলোকচিত্রী।বিদায়ের সময় আলোকচিত্রী বলছেন বাবুর্চিকে, বাহ্! দারুণ খাওয়া দাওয়া হলো, বন্ধু! রান্না বেশ ভালো ছিল!
তোমার চুলাটা নিশ্চয়ই খুবই ভালো আর দামি!?

 

Bengali Shayari – ১০০০+ বাংলা শায়রী | মিষ্টি প্রেমের ছন্দ

 

বাংলাদেশে টাকার দাম যে হারে কমতেছে ২১০০ সালের বাজেটের পরে………
-এই রিকশা মতিঝিল যাইবা ?
– যামু
– কত ?
– চাইর লাখ ।
– না মামু । তিন লাখ পঁচাত্তর দিমুনে… চলো

ঝগড়ার দিন দুপুরে ফোনে কথোপকথন ?
স্বামীঃ কি গো , দুপুরে কি রান্না করলে ।।
স্ত্রীঃ বিষ রান্না করেছি বিষ ।। ( রেগে আগুন )
স্বামীঃ তাহলে , তুমি খেয়ে নাও আমি আজ বাইরে খেয়ে নেব ।

একদিন ছোট্ট বল্টুকে তার স্কুলের স্যার বাসা থেকে ৩টা ফলের নাম লিখে আনতে বললেন!!
বল্টু বাসায় গিয়ে তার চাচাকে জিজ্ঞেস করল “চাচা ৩টা ফলের নাম বল?” চাচা বলল “তোর বকবক শুনার জন্য আমার হাতে সময় নাই” বল্টু লিখে নিল।
এরপর সে গিয়ে বড় ভাইকে জিজ্ঞেস করল “ভাইয়া ২টা ফলের নাম বল” ভাইয়া
উত্তর দিল “গার্লফ্রেন্ডের ­­ ফোন আসবে এখন,জলদি এখান থেকে ভাগ”
বল্টু এটা খাতায় লিখে নেয়
এরপর সে গিয়ে বুড়ো দাদুকে জি করল “দাদু একটা ফলের নাম বল” দাদু হেসে বলে“তুই একটা পাগল”
বল্টু এটাও খাতায় লিখে নেয়।
পরের দিন স্কুলে স্যার বল্টুকে জিজ্ঞেস করল “৩টা ফলের নাম লিখে আনছ??”
বল্টুঃ “জি স্যার”
স্যারঃ “বল”
বল্টুঃ “তোর বকবক শুনার জন্য আমার হাতে সময় নাই”
স্যারঃ “কি??
চল প্রিন্সিপ্যালের ­­ কাছে” বল্টুঃ“গার্লফ্রেন্ডের ­­ ফোন আসবে এখন, জলদি এখান থেকে ভাগ” স্যারঃ “কি!!! জানিস আমি কে??”
.. . . বল্টুঃ “তুই একটা পাগল”..




 

মাথায় খাঁচাভর্তি মুরগি নিয়ে বাজারে যাচ্ছিল চাষিপুত্র। এমন সময় খাঁচাটা মাথা থেকে পড়ে ভেঙে গেল, মুরগিগুলোও ছাড়া পেয়ে সব এদিক-ওদিক ছোটাছুটি শুরু করল। বহু কষ্টে সবগুলো মুরগি ধরে খাঁচার ভেতরে ঢুকাল চাষিপুত্র। ভয়ে ভয়ে বাড়ি ফিরল।
চাষি বললেন, কী রে, ফিরে এলি কেন?
চাষিপুত্র: ইয়ে মানে, আব্বা, যাওয়ার পথে খাঁচাটা ভেঙে মুরগিগুলো
বেরিয়ে গিয়েছিল। অবশ্য আমি ১১টা মুরগিই ধরে ফেলেছি, কোনোটাই পালাতে পারেনি।
চাষি: শাবাশ ব্যাটা! তুই সাতটা মুরগি নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলি!

এক ধোপার গাধা হারিযে গেছে । খুজতে খুজতে সারা দিন পার হয়ে গেছে।
বিকেলে ধোপা এক গাছের উপর উঠে চারি দিকে তাকিয়ে খোজার চেষ্টা করছে ।এমন
সময় দুজন প্রেমিক প্রেমিকা এসে গাছের নিচে বসলো। প্রেমিক প্রেমিকাকে বলছে, ডার্লিং তোমার চোখে চোখ রেখে আমি গোটা দুনিয়াই দেখতে পাই ।
একথা শুনে ধোপা গাছ থেকে ধপাস করে লাফ দিয় নেমে হাত জোর করে বললো ঐ চোখের দিকে তাকিয়ে আমার হারিয়ে যাওয়া গাধাটা কোথায় আছে বেলে দিন না প্লিজ ।

Bengali Jokes

Bengali Jokes SMS

আবুলের মাথায় কত বুদ্ধি !!!
মন্টু : একটা বাঘ যদি তোমার শাশুড়ি ও বউকে একই সময়ে আক্রমন করে, তাহলে তুমি কাকে বাঁচাবে ?
আবুল: অবশ্যই বাঘটাকে , কারণ ওরা সংখ্যায় বড্ড কম !

এক মেয়ে পুলিশ স্টেশন-এ গিয়েছে মামলা করতে
পুলিশ অফিসার : ম্যাডাম আপনার PROBLEM টা কি???
মেয়ে : এক লোক আমায় RAPE করেছে.
অফিসার : RAPE করার সময় আপনি বাঁধা দিলেন না কেন???
মেয়ে : কি করে দেব আমার দুইহাতে- তো মেহেদী লাগানো ছিল….!!!!!!!
অফিসার কিছুক্ষণ চিন্তা করার পর বলল, আবার কবে আপনি মেহেদী লাগাবেন?????

একটা মেয়ে ফ্যানের সাথে ওড়না ঝুলিয়ে গলায় ফাঁস নিচ্ছিল ৷
কাশেম সেটা জানালা দিয়ে দেখে চিত্কার করে বলল ‘শুধু ঝুলে থাকলেই লম্বা হওয়া যায়না , মামুনি কে বল Complan খাওয়াতে ৷

আবুল সিনেমা হলে সিনেমা দেখছে। আবুলের পাশের সিটে বসেছে এক বুড়ো। ঐ বুড়োর হাতে একটা ছোট পেপসির বোতল। বুড়ো ৫ মিনিট পরপর বোতলে চুমুক দিচ্ছে।
সিনেমায় দুর্দান্ত এ্যাকশন চলছে। কিন্তু একটু পরপর বুড়ো পেপসির বোতলে চুমুক দেওয়ায় আবুলের খুব ডিসটার্ব হচ্ছে।
এভাবে অনেকক্ষণ চলার পরে আবুল বিরক্ত হয়ে বুড়োর হাত থেকে পেপসির বোতলটা কেড়ে নিয়ে বললঃ
এটুকু খেতে এতবার চুমুক দিতে হয়?
এই দেখেন,কিভাবে খেতে হয় !! এই বলে সে এক চুমুকে বোতলের বাকি পেপসি টুকু খেয়ে ফেলল। বুড়ো ভীষণ অবাক হয়ে বলল ↓↓↓
একি করলে বাবা !!
আমিতো পেপসি খাচ্ছিলাম না !!
ঐ বোতলে একটু পর পর পানের পিক ফেলছিলাম !!

স্কুলের এক টিচার টিফিন টাইমে তারএকস্টুডেন্ট বল্টুর টিফিন খেয়ে ফেলেছে!!!
টিচারঃ আমি যে, তোমার টিফিন খেয়ে ফেলেছি তুমি কিন্তু বাসায় গিয়ে তোমার
মা-কে বলব না।
বল্টুঃ জ্বি স্যার, আপনার কথা বলবনা। বলব একটা কুত্তা আমার টিফিন খেয়েফেলেছে!!

রাতের বেলা চান্দু ঘুমাতে গেলো!! মশার কামড়ে অতিষ্ঠ হয়ে সে মশারি টানালো!! কিন্তু ভুলক্রমে একখানা জোনাকি পোকা মশার ভিতর ঢুকে পড়ল!!
বাতি নিভানোর পরে চান্দু যখন জোনাকিটা দেখিল তখন হাহাকার করে উঠে বললঃ . . . .
‘হায় হায়!! মশা তো আমারে টর্চলাইট জ্বালাইয়া খুজতেসে!! আমি এখন কই যাই??

এক দুষ্টু পিচ্চি ছেলে এসে তার মাকে বললঃ আমরা ইস্ত্রি করিকেন?
মাঃ কোঁচকানো জিনিস প্লেইন করার জন্য। একটু পরে পিচ্চির দাদীর রুম থেকে ভয়ংকর একটা চিৎকার শোনা গেল !!
পিচ্চির মা রান্নাঘর থেকে বললঃ কি হয়েছে??
পিচ্চি উত্তর দিল ↓↓↓
দাদীর গাল দুটো ইস্ত্রি করছি !!!

আবুল সাহেবের ছেলে তাকে বলছেঃ আচ্ছা বাবা ধর, তুমি সকালে হাঁটতে বের হয়েছ, পার্কের নির্জন রাস্তায় হেঁটে যাচ্ছ. . .
এমন সময় তুমি দেখলে রাস্তার মাঝে একটা চকচকে নতুন একশ টাকার নোট, একটা পুরনো পাঁচশ টাকার নোট আর একটা আরও পুরনো এক হাজার নোট পড়ে রয়েছে, তুমি কোনটা তুলে নেবে??
আবুল সাহেবঃ উম্ম্ম. . . . .
এক হাজার টাকার নোট, পুরনো হলেও টাকা তো টাকাই!!
ছেলেঃ এই জন্যই মানুষ তোমারে নিয়া জোকস বানায়! তিনটাই তো নিতে পার!

 




Please share Your Friends these Bengali Jokes.

ছেলে: তুমি খালি পেটে কয়টা আপেল খেতে পারবে??
মেয়ে : ৬টা
ছেলে : তুমি একটার বেশি খেতে পারবে না, কারন একটা আপেল খেয়ে ফেলার পর তোমার পেট তো আর খালি থাকবেন না.
মেয়ে : ওয়াও!! খুব সুন্দর জোকস.
আমি কাল আমার বান্ধবিকে এটা বলব.
মেয়ে তারপর দিন তার বান্ধবি কে বলতেছে-
মেয়ে : তুই খালি পেটে কয়টা আপেল খেতে পারবি??
বান্ধবি: ১০টা.
মেয়ে : ধুৎ, তুই যদি ৬টা বলতি তাহলে একটা জোকস হত..

হাইওয়েতে একটি গাড়ি খুব ধীর গতিতে চলছে দেখে হাইওয়ে পুলিশ আটকালো । এভাবে চললে পিছনের গাড়ির ধাক্কা খেয়ে বিরাট দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে ।
পুলিশ বললো-“আপনি মাত্র ১৫ কিলোমিটার গতিবেগে গাড়ি কেন চালাচ্ছেন?”
লোক-“হাইওয়ের শুরুতেই গতিসীমা লেখা ছিলো ১৫ ।”
পুলিশ বললো-“ওটা গতিসীমা নয়, ওটা হাইওয়ের নাম্বার…অর্থাৎ এটা ১৫ নাম্বার হাইওয়ে ।”
লোক- “ওহ ! তাহলে তো ভুল হয়ে গেছে । আচ্ছা, এখন থেকে আমি স্বাভাবিক গতিতে চালাবো ।”
পুলিশ বললো- “আপনার গাড়ির পিছনের সিটে দু’জনকে দেখতে পাচ্ছি, তারা শূণ্য দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে… অল্প অল্প কাঁপছে…মনে হচ্ছে খুব শক্ পেয়েছে…
কী ব্যাপার ?”
লোক-“না মানে…
একটু আগে ৩১০ নাম্বার হাইওয়ে পার হয়ে আসলাম তো…”

ছেলেঃ বাবা আমাকে ১টা ঢোল কিনে ডিবে
বাবাঃ না, তুমি সবসময় ঢোল বাজিয়ে বিরক্ত করবে
ছেলেঃ সব সময় বাজাব না সবাই যখন ঘুমাবে তখন বাজাব

Bengali Jokes

মা দেখলো ছেলে গাল চেপে ধরে কাঁদছে।
বলল – কিরে কাঁদিস কেন?
ছেলে- বাবা দেয়ালে পেরেক মারতে গিয়ে আঙুলে ব্যাথা পেয়েছে।
মা- তো এতে কাদার কি আছে? বাবা বড় মানুষ না, এটুকু ব্যাথায় তার কিছু হয়?
ছেলে- আমিতো প্রথমে হেসেইছিলাম… সেজন্যইতো বাবা আমাকে…!!!

মানসিক হাসপাতালের এক রোগী একমনে কী যেন লিখছেন। চুপি চুপি পেছনে এসে দাঁড়ালেন ডাক্তার। বললেন, কী হে, চিঠি লিখছেন নাকি?
রোগী: হু।
ডাক্তার: কাকে লিখছেন?
রোগী: নিজেকে।
ডাক্তার: বাহ্! ভালো তো। তা কী লিখলেন?
রোগী: আপনি কি পাগল নাকি মশাই? সবে তো চিঠিটা লিখছি। চিঠি পাঠাব, দুদিনবাদে চিঠিটা পাব, খুলে পড়ব। তারপর তো বলতে পারব কী লিখেছি!

জীবনে প্রথম জেব্রাকে দেখে এক ঘোড়া প্রশ্ন করল আরেক ঘোড়াকে, ‘ওটা আবার কে?’
ওটাও ঘোড়া। জেলখানায় ছিল নিশ্চয়ই। মনে হয় পালিয়েছে, তবে পোশাক পাল্টানোর সময় পায়নি এখনো।’

১মঃ চাঁপাবাজ আমার দাদুর অনেক গুলো গরু ছিল যা চড়াইতে ৩-৪ টা মাঠের দরকার পরত..…
২য়ঃ চাঁপাবাজ আমার দাদু বাঁশ দিয়ে মেঘ সরিয়ে রোদে ধান শুকাত
১মঃ চাঁপাবাজ তুই মিথ্যা কথা বলতেছ, তোর দাদু এত বড় লম্বা বাঁশ কোথায় রাখতরে?
২য়ঃ চাঁপাবাজ কেন? তোর দাদুর গোয়ালে…

এক কৃষকের দুই বউ। পাশের বাড়ির এক যুবক দুই বউয়ের প্রেমে পড়ে গেল। বড় বউয়ের কাছে প্রেম নিবেদন করতেই বড় বউ তাকে ঝাঁটাপেটা করে তাড়ালো।
এরপর সে ছোট বউকে প্রেম নিবেদন করলো। ছোট বউসঙ্গে সঙ্গে রাজি।
চলতে লাগলো তাদের গোপন অভিসার। পাড়াপড়শী রাও জেনে গেল ব্যাপারটা।
তো একদিন কৃষকটা মারা গেল। আর যুবকটি বিয়ে করে ফেললো বড় বউকে। সবাই অবাক।
ছোট বউয়ের সাথে প্রেম করে বড় বউকে বিয়ে করার কারন জিজ্ঞাসা করলো সবাই।
তখন যুবক বিজ্ঞের মতো সবাইকে জানালো—’পরপুরুষ কে ঝাটা মারতে পারে এমনবউই তো দরকার।.

ছেলেঃ তুমি খুব সুন্দর একটা শাড়ি পড়েছ।
মেয়েঃ জি ধন্যবাদ।
ছেলেঃ লিপস্টিক এবং মেকআপও অনেক ভাল করেছ।
মেয়েঃ জি ধন্যবাদ।
ছেলেঃ অনেক জমকালো গয়নাও পড়েছ সুন্দর করে
মেয়েঃ (একটু ভাব নিয়ে) ধন্যবাদ ভাইয়া।
ছেলেঃ তবুও তোমাকে পেতনীর মত লাগতাছে।

এক বাসায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সারাদিন ঝগড়া চলে। অথচ, তাদের পাশের বাসায় দিন-রাত হাসির শব্দ শোনা যায়।
একদিন ঐ স্বামী পাশের বাসার ভদ্রলোকের কাছে জানতে চাইলোঃ আচ্ছা ভাই, আমার স্ত্রী তো সারাদিন আমার সাথে ঝগড়া করে। আর আপনার বাসা থেকে সবসময় হাসির আওয়াজ পাই। আপনারা ঝগড়া না করে এত সুখে কি করে থাকেন, বলুন তো?
ভদ্রলোক রেগে বললেনঃ কে বলেছে আমরা সুখে আছি? কে বলেছে ঝগড়া করিনা?
– ইয়ে মানে . . . তাহলে যে আপনার… বাসা থেকে সবসময় হাসা- হাসির আওয়াজ আসে?
– আরে ধুর মিয়া, আমার বউ এর সাথে সবসময় ঝগড়া লেগেই আছে!
আর ঝগড়া হলেই ও হাতের কাছে যা পায়, আমার দিকে ছুঁড়ে মারে।
. আমার গায়ে লাগলে খুশিতে বউ হাসে, আর না লাগলে খুশিতে আমি হাসি !!!

Bengali Jokes




 

কিরে দোস্ত সারাদিন সারারাত বিল গেটস এর বাড়ির সামনে কান পায়তা বইসা থাকস, ঘটনা কি?
অপর কুকুরঃ দোস্ত আর বলিস না…
বিল গেটস এর পোলা একটা অপদার্থ…
সে যখন তার পোলারে কুত্তার বাচ্চা কইয়া গালি দেয়….
কি যে শান্তি লাগে!!!! নিজেরে বিল গেটস মনে হয়…অছাম ফিলিংস…. :

বল্টু গেলো ক্রিকেট খেলায় আম্পায়ারিং করতে । খেলা শুরু হলো……..
বোলিং বল করলো ব্যাটিংয়ের ব্যাটে না লেগে বলটি লাগলো ব্যাটিংয়ের রানে ।
এদিকে আম্পায়ার আউট দিয়ে দিলো ।
আম্পায়ারের কাছে আউটের কারন জানতে চাইলে সে বললো ,
রানে লেগেছে তাই রান আউট হইছে ।

গির্জায় কনফেশন চলছে—

: ফাদার, আমি একটি মুরগি চুরি করেছিলাম। সেটা নিয়ে আপনি আমাকে পাপমুক্ত করবেন?
: না, এভাবে হয়না, তুমি যার মুরগি তাকে ফেরত দিয়ে আসো।
: ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু মুরগির মালিক ফেরত নিতে চায় না।
: সে ক্ষেত্রে তুমি পাপমুক্ত। কারণ তুমি মুরগির মালিককে ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করেছিলে।
মুরগিচোর খুশিমনে মুরগি নিয়ে বাড়ি চলেগেল। ওদিকে পাদ্রি বাড়ি ফিরে দেখেন তাঁর মুরগিটি নেই।

 

Please share Your Friends these Bengali Jokes.

 

।।ধন্যবাদ।।

 




 

24 thoughts on “Bengali Jokes – ১০০০+ হাসির জোকস – হেসে পেট ব্যাথা হয়ে যাবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *